প্রতিমা বিসর্জন—দেরির শুরুতেও শান্তিপূর্ণ শেষ, সবার চোখ শনিবারে

প্রতিমা বিসর্জনে শেষ হলো ৫ দিনব্যাপী শারদীয় দুর্গোৎসব। তবে অন্যান্যবারের চেয়ে এবার প্রতিমা বির্সজন দেরিতে শুরু হয়। দেরিতে শুরু হলে বির্সজন শেষ হয়েছে শান্তিপূর্ণভাবে। শনিবারের সংবাদ সম্মেলনেই এখন চোখ সারাদেশের পূজা পরিষদ নেতাদের।

শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) বিজয়া দশমীতে নগরের বিভিন্ন স্থানে প্রতিমা বিসর্জন শুরু হয় সন্ধ্যা ৬টায়। এদিন পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত, অভয়মিত্র ঘাট (নেভাল-২), কালুরঘাট, পারকি ও কাট্টলীতে প্রতিমা বিসর্জনের আয়োজন করা হয়।

গত ১১ অক্টোবর ষষ্ঠী পূজার মাধ্যমে শুরু হয় শারদীয় দুর্গোৎসব। এবার দেবী দুর্গা ঘোড়ায় এসেছিলেন মর্ত্যে। আর কৈলাসে ফিরলেন দোলায় চড়ে। প্রতিমা বিসর্জনকে ঘিরে শুক্রবার দুপুর থেকেই পতেঙ্গা সৈকত ও অভয়মিত্র ঘাটে ভিড় জমান নানা বয়সের দর্শনার্থী। এসময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ছিল সতর্ক দৃষ্টি।

তবে এবার প্রতিমা নিরঞ্জন দুপুর ৩টা থেকে শুরু করার কথা থাকলেও দুপুর দেড়টার দিকে হঠাৎ জেএমসেন হলে হামলার কারণে প্রতিমা বিসর্জন বন্ধ ঘোষণা করেন মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ।

আরও পড়ুন: মহানবমী—উৎসবের শেষ রাত আজ 

হামলার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করেন বিক্ষোভ করেন পরিষদ নেতারা। এরপর প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক এবং আশ্বাসের পর সন্ধ্যা ৬টা থেকে প্রতিমা বিসর্জন শুরু হয়। এরপর অভয়মিত্র ঘাটে প্রতিমাবাহী ট্রাকের লম্বা সারি চোখে পড়ে। তবে ঘাটে কাদার কারণে পূজা কমিটিকে প্রতিমা বিসর্জনে বেশ বেগ পেতে হয়।

এদিকে জেএমসেন হলে হামলার ঘটনায় এবার অনাড়ম্বভাবে প্রতিমা নিরঞ্জন করা হয়। পূজা মণ্ডপগুলোতেও ছিল না বিদায়ের কোনো আয়োজন কিংবা সিঁদুর খেলা। ছিল না মিষ্টিমুখের আয়োজন। এর আগে সকালে বিজয়া দশমীতে শান্তিজল গ্রহণের মাধ্যমে শেষ হয় দর্পণ বিসর্জন। পূজা শেষে ভক্তদের দেওয়া হয় অঞ্জলি।

মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতি লায়ন আশীষ ভট্টাচার্য আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, এবার মহানগরে পূজার সংখ্যা ২৭৬টি। পতেঙ্গা, অভয়মিত্র ঘাট, কালুরঘাটসহ আরও কয়েকটি জায়গায় প্রতিমা বিসর্জন হয়েছে। তবে প্রতিমা বিসর্জনে কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

শনিবার পূজা পরিষদের কোনো কর্মসূচি আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে এখনও কোনো নির্দেশনা আসনি। তবে কাল (শনিবার) কেন্দ্রীয় কমিটির সংবাদ সম্মেলন আছে। সেখান থেকে ঘোষণা আসতে পারে।

আরবি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm