প্রবাসী নারীর ৩২ ভরি স্বর্ণ ছিনতাই, ব্ল্যাঙ্ক চেকে স্বাক্ষর—গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

রাউজানের আরব আমিরাত প্রবাসী নারীর ছিনতাই মামলায় অভিযুক্ত প্রধান আসামি মো. ইমতিয়াজ ফারুকীর (৩৭) বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

চট্টগ্রামের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২ এর বিচারক বেগম নাজমুন নাহার এ পরোয়ানা জারি করেন। আসামি মো. ইমতিয়াজ কর্ণফুলী থানার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ডা. ইদ্রিসের বাড়ির ইব্রাহিম আলী ফারুকীর ছেলে।

বাদী মোচ্ছাম্মৎ লুৎফা আকতার (৪৫) রাউজান পৌরসভার দক্ষিণ গহিরা মুক্তার বাড়ি ২ নম্বর ওয়ার্ডের মো. শামসুল আলমের স্ত্রী।

আরও পড়ুন: চালকের বেশে ছিনতাইকারী, আইনজীবীর হাতে ধরা

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ৫ মার্চ রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টায় চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুবাই থেকে আসা প্রবাসী মোচ্ছাম্মৎ লুৎফা আকতারের পরিবারের সবাইকে কৌশলে মাইক্রোতে তুলে নেয় আসামি মো. ইমতিয়াজ ফারুকী। এ সময় আসামির সঙ্গে থাকা আরও ৩-৪ জন অজ্ঞাত অস্ত্রধারী তাদের জিম্মি করে ৩২ ভরি স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নেয়। একইসঙ্গে ভয় দেখিয়ে খালি চেক এবং অলিখিত নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়। লুৎফার স্বামী-সন্তানকেও বাধ্য করে অলিখিত স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর দিতে।

গত ২৪ নভেম্বর আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন রাউজান থানার ওসি তদন্ত পুলিশ পরিদর্শক মো. কায়সার হামিদ।

বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট জিয়া হাবীব আহ্সান, অ্যাডভোকেট এএইচএম জসিম উদ্দিন, অ্যাডভোকেট মো. হাসান আলী, অ্যাডভোকেট বদরুল হাসান ও অ্যাডভোকেট মো. জিয়াউদ্দীন (আরমান)।

অ্যাডভোকেট জিয়া হাবীব আহ্সান আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, বাদীর আবেদন শুনানি, তদন্ত প্রতিবেদন ও নথিপত্র পর্যালোচনা করে ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় প্রধান আসামি মো. ইমতিয়াজের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm