যুবলীগ নেতাকে মেরে লুকিয়েও শেষমেশ ধরা খেল খুনি

রাঙামাটি যুবলীগ নেতা উসেপ্রু হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামিসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- বিজয় তংচংঙ্গ্যা (৩২), সনাধন চাকমা (৩৭), শিশু বিকাশ চাকমা (৪৫) এবং ৬ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি বাদশা।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাইখালী জোন ও চন্দ্রঘোনা থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে ভালুকিয়া এলাকা থেকে বিজয় তংচংঙ্গ্যাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈরি এলজি ও চার রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় তার বিরুদ্ধে চন্দ্রঘোনা থানায় অস্ত্র মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার চৌধুরী।

জানা যায়, ২০২০ সালের ১ এপ্রিল দিবাগত রাতে কাপ্তাই উপজেলাধীন চিৎমরম ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের যুবলীগের নেতা উসেপ্রুকে ঘুম থেকে তুলে ঘরের বাইরে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে জেএসএসের সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনার চারদিন পর চন্দ্রঘোনা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি বিজয়।

চন্দ্রঘোনা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, জেএসএস’র সক্রিয় সন্ত্রাসী বিজয় তংচংঙ্গ্যা চিৎমরম ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি। সে ৩ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি উসেপ্রু মারমা হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত ১৮ নম্বর আসামি।

যুবলীগ নেতাকে মেরে লুকিয়েও শেষমেশ ধরা খেল খুনি

অপরদিকে মঙ্গলবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কাপ্তাইয়ের হরিণছড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএসের দুই সদস্য সনাধন চাকমা ও শিমু বিকাশ চাকমাকে গ্রেফতার করা হয়। কাপ্তাই ৭ আরই ব্যাটালিয়ানের নেতৃত্বে অভিযানে তাদের কাছ থেকে ২টি দেশীয় বন্দুক, ১ রাউন্ড এ্যামুনেশন, ২টি মোবাইল ফোন, ১টি ছুরি, মদ এবং চাঁদা সংগ্রহের রেজিস্ট্রার উদ্ধার করা হয়।

তাদের কাপ্তাই থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান কাপ্তাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসির উদ্দিন।

এছাড়া রাঙামাটির কাপ্তাই থানা পুলিশের অভিযানে ১৪ মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত এবং ৬ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি বাদশাকে গ্রেফতার হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ২টায় নগরের চান্দগাঁও থানা পুলিশের সহযোগিতায় কাপ্তাই থানা পুলিশ পূর্ব মোহরার মসজিদ মার্কেট এলাকা হতে বাদশাকে গ্রেফতার করে। সে বনদস্যু হিসেবে পরিচিত এবং কাঠ পাচারে জড়িত।

কাপ্তাই থানার ওসি বলেন, বাদশার বিরুদ্ধে কাপ্তাই থানায় ৬ বছরের সাজাসহ ১৪টি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা আছে। সে ২০১২ সাল হতে পলাতক ছিল।

মানিক/ডিসি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm