লোকনাথ মন্দির ভাঙচুর করেছেন চেয়ারম্যান

আনোয়ারার সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান অসীম কুমার দেবের বিরুদ্ধে মন্দির ভাঙচুর ও নিরীহ মানুষের উপর অত্যাচারের অভিযোগে মানববন্ধন করেছেন স্থানীয়রা।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে ৭ নম্বর সদর ইউনিয়ন এলাকাবাসীর ব্যানারে উপজেলা পরিষদের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জোবায়ের আহমেদের কাছে স্মারকলিপি দেন ভুক্তভোগী ও ক্ষতিগ্রস্তরা।

আরও পড়ুন: রাতের আঁধারে ভাঙচুর করে আগুন দেওয়া হলো নৌকার প্রচারকেন্দ্রে

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন রুবেল দাশ, কাজল দত্ত, রাজিব কুমার দাস, জোটন মিত্র, তিনেষ চক্রবর্তী ও নন্দিনী চক্রবর্তী।

Thai Food
ইউএনওকে স্মারকলিপি প্রদান

মানববন্ধনে বক্তারা চেয়ারম্যান অসীম কুমার দেবকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে বলেন, স্বাধীনতা পরবর্তী সময় থেকে আনোয়ারায় মুসলমান, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সম্প্রীতির সঙ্গে বসবাস করে আসছে। কিন্তু অসীম কুমার দেব চেয়ারম্যান হওয়ার পর থেকে সাম্প্রদায়িক শান্তি বিনষ্ট করে সাধারণ মানুষকে অত্যাচার-নির্যাতন শুরু করেন। মন্দিরের জায়গা দখলে নিতে অসীম চেয়ারম্যান লোকনাথ মন্দির ভাঙচুর করেন।

ভুক্তভোগী নন্দিনী চক্রবর্তী জানান, ২০১৫ সালে সাড়ে ১৭ লাখ টাকা দিয়ে জমি কিনে ঘর নির্মাণ করি। স্বামী-সন্তান নিয়ে বেশ কিছুদিন থাকার পর পার্শ্ববর্তী মিন্টু দে বিভিন্ন রকম ভয়-ভীতি দেখায়। এরপর ঘরটি ভাড়া দিয়ে শহরে চলে আসি। কিছুদিন পর জানতে পারি ঘর থেকে ভাড়াটিয়াদের বের করে এটি দখলে নিয়েছেন মিন্টু দে। এ ঘটনায় আমি স্থানীয় চেয়ারম্যান অসীম কুমার দেবকে জানালে তিনি কিছুই করতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন। উল্টো তিনি মিন্টুকে বিভিন্ন সময় সহযোগিতা করেন।

আরও পড়ুন: ‘প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর ভাঙচুর’—সামনেই ‘যুবলীগের বদি’

এদিকে স্মারকলিপি পাওয়ার পর জয়কালী বাজারের সর্দারপাড়ার লোকনাথ মন্দির পরিদর্শন করেন ইউএনও শেখ জোবায়ের আহমেদ, সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) হুমায়ন কবির ও আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম দিদারুল ইসলাম সিকদার।

ইমরান/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm