স্কুলের নিচে মিলল ২১৫ শিশুর গণকবর

দক্ষিণ ব্রিটিশ কলম্বিয়ার একটি সাবেক আবাসিক বিদ্যালয়ের নিচে ২১৫ আদিবাসী শিশুর গণকবরের সন্ধান পাওয়া গেছে। স্কুলটি আদিবাসীদের ছিল বলে জানা গেছে। সেই সাথে এখানে তিন বছর বয়সী বাচ্চার দেহাবশেষও পাওয়া গিয়েছে।

এই এলাকায় একসময় রেড ইন্ডিয়ান বিভিন্ন গোত্রের বাস ছিল। এরমধ্যে Tk’emlups te Secwépemc একটি।

বৃহস্পতিবার (২৭ মে) স্কুলটির আশপাশে তদন্ত করে Tk’emlups te Secwépemc গোত্রীয়দের পক্ষ থেকে। তাদের রাডারে এই গণকবরটি ধরা পড়ে।‘এইসব শিশুদের মৃত্যুর কোনো নথি ছিল না বলে আমরা জানতে পেরেছি। তাদের মৃত্যুর কারণ ও সময় এখনো জানতে পারিনি’, বলছিলেন এই গোত্রীয় সংগঠনের প্রধান রোজান ক্যাসিমির।কমলুপসের এই ভারতীয় আবাসিক স্কুলটি পরিচালিত হতো রোমান ক্যাথলিক গির্জার নেতৃত্বে। যেটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ১৮৯০ সালে এবং ১৯৭৮ সালে এটি বন্ধ করা হয়েছিল।

২০১৫ সালের এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, এই আদিবাসী শিশুদের জোর করে আবাসিক স্কুলের নিয়ে আসা হতো যাতে করে তারা তাদের মাতৃভাষা ও সংস্কৃতিচর্চা করতে না পারে। এরপর এখানে তাদের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হতো। এই ধরনের স্কুলগুলোতে তখন প্রায় দেড় লাখ শিশু থাকতো। তবে বিদ্যালয়গুলো নিয়ে গবেষণার কিছু নথিতে উল্লেখ আছে, এই স্কুলের শিক্ষার্থীরা হাম, যক্ষ্মা, ইনফ্লুয়েঞ্জাসহ নানা রকম সংক্রামক রোগে মারা গিয়েছিল। স্কুলে হামে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার বিষয়ে ১৯৩৫ সালের একটি প্রতিবেদনে একজন এজেন্ট উল্লেখ করেন, ‘বিদ্যালয়ের ২৮৫ জন শিক্ষার্থীর জন্য আবাসিক সুবিধাসহ থাকার ব্যবস্থা রয়েছে। মহামারীর সময় এখানে পরিচালনা করা খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে।’

স্কুল সীমানার কিছু জায়গায় কাঠের তৈরি বক্স আছে। এইসব বক্সের নিচে গণকবর আছে বলে ধারণা করা হয়।

টিআরসি’র মতে, কমপক্ষে ৩,২২০ টি আবাসিক স্কুল মৃত্যুর গণনা করেছে, যদিও নিখরচায়িত মৃত্যু এবং ধ্বংস হওয়া ফাইলের কারণে প্রকৃত মোটটি কখনও জানা যায় না।

ধারণ করা হয়, ৩২১০টি স্কুলে এ ধরনের গণহত্যা চালানো হয়। তবে এর সংখ্যা পরিবর্তিত হতে পারে। কারণ অনেক স্কুল তাদের নথিপত্র ধ্বংস করে ফেলেছিল।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এ ঘটনা নিয়ে একটি টুইট করেন। তিনি বলেন, ‘এ ঘটনায় সত্যি মর্মাহত আমি। এটি আমাদের দেশের জন্য লজ্জাজনক ঘটনা।’

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm