লামার ৭ বিজয়ীকে ফুল দিয়ে বরণ করলেন বীর বাহাদুর

পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে এখন উন্নয়ন ও শান্তির সুবাতাস বইছে। মহিলাদের আত্মনির্ভরশীল করতে সেলাইমেশিন ও গাভী বিতরণ করা হচ্ছে। জনগণ সুখী না থাকলে রাজনীতি বৃথা। বান্দরবানের ৭ উপজেলায় ১৪টি কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও সরকারি-বেসরকারি সংস্থাগুলো করোনাসহ কঠিন পরিস্থিতিতে জনগণের পাশে ছিল।

বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) লামা সদর ইউনিয়নের মেরাখোলা ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে রেড ক্রিসেন্ট বান্দরবান আয়োজিত অনুদান প্রদান সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, কিছু দুষ্কৃতকারী লোকজন সবসময় উন্নয়নের বিরোধিতা করছে। তাদের কোনো জাত নেই। সকলে সম্মিলিতভাবে তাদের প্রতিহত করতে হবে।

আরও পড়ুন : লামায় আওয়ামী লীগের ‘লাকি সেভেন’

পরে পার্বত্য মন্ত্রী লামা উপজেলায় নবনির্বাচিত সাত ইউপি চেয়ারম্যানকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। তাঁদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, শত্রুকে আঘাত করা যাবে না। সবার মন জয় করতে হবে। যারা ভোট দেয়নি তাদের মন জয় করে ভবিষ্যতে তাদের সমর্থন নিতে হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বান্দরবান রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম চৌধুরী।

এর আগে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে কাটা পাহাড় জামে মসজিদের বারান্দা ও অযুখানা নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং। এছাড়া সদর ইউনিয়নের স্থানীয়দের সেলাই মেশিন, ধান ভাঙার মেশিন, স্প্রে মেশিন ও কম্বল বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বান্দরবানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল, লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল, লামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোস্তফা জাবেদ কায়সার, লামা পৌরসভা মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাজী আতিকুর ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাথোয়াইচিং মার্মা, লামা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন।

সানি/ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm