ব্যালন ডি’অর—লাকি সেভেনে মেসি

সব জল্পনা-কল্পনা আর অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে আবারও ফুটবলের নোবেলখ্যাত ব্যালনব্য ডি’অর শিরোপা উঠেছে আর্জেন্টাইন জাদুকর লিওনেল মেসির হাতেই। সপ্তমবারের মতো এই ট্রফি জিতলেন ফুটবলের বিস্মময় মেসি!

ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিনের দেওয়া বছরের সেরা খেলোয়াড়ের এ পুরস্কার জয়ের লড়াইয়ে মেসির সঙ্গে ছিলেন বায়ার্ন মিউনিখের তারকা স্ট্রাইকার রবার্ট লেওয়ানডস্কি ও চেলসির তারকা মিডফিল্ডার জর্জিনহো। শেষ পর্যন্ত ভোটাভুটিতে তাদের পেছনে ফেলে ব্যালন ডি অরের সপ্তম স্বর্গে উঠে গেছেন মেসি।

আরও পড়ুন: পেলেকে ছাড়িয়ে শীর্ষে মেসি

এবারের ব্যালন জেতার আগে মেসি নিজ দেশকে এনে দিয়েছিলেন কোপা আমেরিকা শিরোপা। যেখানে সর্বোচ্চ গোল (৪), সর্বোচ্চ এসিস্ট (৫), সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতেছিলেন মেসিই। এছাড়া বার্সেলোনার হয়ে লা লিগায় সর্বোচ্চ গোল এবং কোপা দেল রে শিরোপাও জিতেছিলেন তিনি।

চলতি বছরের আগে ২০০৯ থেকে ২০১২ পর্যন্ত টানা চারবার ব্যালন জিতেছেন মেসি। এ কৃতিত্ব নেই বিশ্বের আর কোনো ফুটবলারের। এছাড়া ২০১৫ ও ২০১৯ সালের সেরা খেতাবও উঠেছে তার হাতে। এর ফলে চির প্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে তার ব্যবধান আরও বাড়ল। পর্তুগিজ তারকা জিতেছেন ৫টি ব্যালন ডি অর।

আরও পড়ুন: মেসি না খেললেও থামেনি পিএসজি, ব্যবধান বাড়াল ১০

সাংবাদিক ও বিশেষজ্ঞদের ভোটে মেসি পেছনে ফেলেছেন রবার্ট লেওয়ানডস্কি, কাইলিয়ান এমবাপে, করিম বেনজেমা, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও জর্জিনহোর মতো তারকাকে। শিরোপা জিততে না পারলেও দ্বিতীয় হয়েছেন পোলিশ তারকা লেওয়ানডস্কি। তবে একটি জায়গায় সান্ত্বনা খুঁজে নিতে পারেন লেওয়ানডস্কি। প্রথমবারের মতো দেওয়া সেরা স্ট্রাইকারের পুরস্কার জিতেছেন তিনি।

তৃতীয় চেলসির ইতালিয়ান মিডফিল্ডার জর্জিনহো। চতুর্থ ও পঞ্চম ফ্রান্সের দুই তারকা করিম বেনজেমা ও এনগোলা কান্তে। স্পেন ও বার্সেলোর মিডফিল্ডার পেদ্রি জিতেছেন সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়ের পুরস্কার। ইতালির গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি ডনারুম্মার হাতে উঠেছে সেরা গোলরক্ষকের লেভ ইয়াসিন ট্রফি।

এসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm