‘বিয়েবাড়িতে ধর্ষণ’—কৌশলে অজ্ঞান করা হলো ১২ বছরের শিশুকে

চকরিয়ায় বিয়েবাড়িতে নেশাজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে ১২ বছরের এক শিশুকে।

গত ২ জুন বিকেল ৫টার দিকে চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের গর্জনতলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় সোমবার (৭ জুন) সন্ধ্যায় থানায় মামলা দায়েরের পর বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।  ভিকটিমের মা বাদি হয়ে দু’জনকে আসামি করে চকরিয়া থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

আসামিরা হলেন- চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের গর্জনতলী এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে মো.ইউনুছ ও ফখরুল ইসলামের মেয়ে রোকসানা আক্তার।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার দিন খুটাখালী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডে রোকসানার বাড়িতে বিয়ের দাওয়াত খেতে যায় ওই শিশু। দুপুরে ভাত খাওয়ার পর পানির সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য পান করানো হলে শিশুটি অজ্ঞান হয়ে যায়। এ সময় মো. ইউনুছ তাকে কৌশলে ধর্ষণ করেন।

দীর্ঘ সময় জ্ঞান না ফেরায় ওই শিশুকে নিজ বাড়িতে দিয়ে আসেন রোকসানা ও ইউনুছ। অবস্থার অবনতি হলে তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। পরে তার জ্ঞান ফিরলে মাকে ধর্ষণের বিষয়টি জানায় ওই শিশু।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ‘ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য আজ (মঙ্গলবার) সকালে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) নেওয়া হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান চলছে।

মুকুল/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm