পারলেন না হাসারাঙ্গা—ব্যাট-বলে দাপুটে জয় টাইগারদের

১০২ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর সানাকা ও উদানার সঙ্গে ছোট দুটি জুটি গড়ে টাইগারদের কপালে চিন্তা ভাঁজ ফেলেছিলেন হাসারাঙ্গা। তবে শেষ পর্যন্ত কোনো অঘটন ঘটেনি। মিরপুরের শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে প্রথম ওয়ানডেতে টাইগাররা জিতেছে ৩৩ রানে। সেই সঙ্গে তিন ম্যাচ সিরিজে এগিয়ে গেছে তামিম বাহিনী। 

রোববার (২৩ মে) টস জিতে ব্যাট করতে নেমে লিটন দাস ফিরে যান রানের খাতা খোলার আগে। এরপর সাকিব-তামিমের দ্বিতীয় উইকেট জুটিও বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। দলের খাতায় ৪৩ রান হতেই বিদায় নেন সাকিব (১৫ রান)। গুণাতিলকার বল মিড অনে উড়িয়ে মারতে গিয়ে নিশাঙ্কার হাতে ধরা পড়েন তিনি।

এরপর তৃতীয় উইকেটে তামিমকে নিয়ে ইনিংস মেরামতের কাজে নেমে পড়েন মুশফিক। ভালোই খেলছিল দু’জন। কিন্তু হাফ সেঞ্চুরি করে বাউন্ডারি মারতে উঠেপড়ে লাগলেন তামিম। ফলস্বরূপ ৫২ রানেই ধনঞ্জয়ার ইয়র্কারে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে ফিরেন প্যাভেলিয়নে। তবে যাওয়ার আগে ‘অনন্য’ এক মাইফলক স্পর্শ করেন চট্টগ্রামের এ তারকা ক্রিকেটার। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ক্রিকেটের সব ফরম্যাটে ১৪ হাজার রান করার কৃতিত্ব এখন শুধুই তামিমের।

তামিম সাজঘরে ফেরার পরের বলে আরো একটি উইকেট। শূন্য রানেই ধনঞ্জয়ার শিকার মিথুন।

পরপর দুই উইকেট হারালেও মুশফিক ছিলেন নির্ভার। ‘ভাইরা’ মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন তিনি। তাদের জুটি বড় সংগ্রহের আশা দেখাচ্ছিল। কিন্তু মুশফিকের ভুলে সব শেষ হয়ে গেল। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১৬ রান দূরে থেকে নিজের ফেভারিট রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে শট থার্ডম্যান অঞ্চলে উদানার তালুবন্দি হন তিনি।

মুশফিক আউট হলেও শেষদিকে মাহমুদউল্লাহর হাফ সেঞ্চুরি এবং আফিফ ও সাইফুদ্দিনের ছোট ইনিংস দলের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ২৫৭-তে নিয়ে যায়।

লঙ্কান বোলারদের মধ্যে ধনঞ্জয়ার ঝুলিতে যায় ৩ উইকেট।

জবাবে খেলতে নেমে মিরাজের ঘূর্ণি-বিষে নাকাল হয়েছে শ্রীলঙ্কা। মিরাজ শুরুটা করেন ওপেনার গুণাতিলকাকে (২১) দিয়ে। এরপর আরেক ওপেনার কুলশ পেরেরা (৩০), মিডলঅর্ডারে ধনঞ্জয়া (৯) ও বান্দ্রা (৩) ফিরে যান মিরাজের বলে।

নিচের সারির স্পিনার ব্যাটসম্যান হাসারাঙ্গা শেষদিকে দুর্দান্ত খেললেও পরাজয়ের ব্যবধান কমাতে পেরেছেন মাত্র। ৬০ বলে ৭৪ রান করে তিনি থামেন সাইফুদ্দিনের বলে। এর আগে লঙ্কান ব্যাটসম্যান সানাকাও (১৪) ফিরে যান সাইফুদ্দিনের বলে।

সানদাকান (৮) অপরাজিত থাকলেও পরের দুই ব্যাটসম্যান উদানা (২১) ও চামিরাকে (৫) সাজঘরে পাঠান মুস্তাফিজ। এর আগে ইনিংসের অষ্টম ওভারে বল করতে এসে নিসাঙ্কার (৮) উইকেটও নিয়েছিলেন এ ‘কাটার মাস্টার’।

এছাড়া সাকিব নেন লঙ্কানদের গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটসম্যান কুশল মেন্ডিসের (২৪) উইকেট।

২৫ মে একই স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে দু’দল।

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm