নাইক্ষ্যংছড়ির ২ বিদ্রোহী প্রার্থীর ঘাড়ে বহিষ্কারের খড়্গ

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ হয়েছে। ৭৪ জন চেয়ারম্যান ও মেম্বার পদপ্রার্থী পেয়েছেন প্রতীক।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে প্রচারনা শুরু করেন প্রার্থীরা।

এদিকে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ নাইক্ষ্যংছড়ির দুই বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীকে বহিষ্কার করেছে। তারা হলেন- বাইশরীর বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর এবং দৌছড়ির বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি হাবিবুল্লাহ।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবু জাফর ছালেহ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দুই ইউনিয়ন বাইশরী ও দৌছড়িতে নির্বাচন হচ্ছে। মঙ্গলবার ছিল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের দিন। বুধবার ছিল প্রতীক বরাদ্দ।

Thai Food

আরও পড়ুন : প্রতীক বরাদ্দ—মিরসরাইয়ে ৩ ইউনিয়নে বিদ্রোহ দমাতে পারেনি আওয়ামী লীগ

তিনি আরো বলেন,অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে বাইশরীতে ৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে মো. আলম কোম্পানি বরাদ্দ পেয়েছেন নৌকা প্রতীক। তিনি বর্তমান চেয়ারম্যানও। ‘বিদ্রোহী প্রার্থী’ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর পেয়েছেন আনারস প্রতীক। তৃতীয়জন হচ্ছেন সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল হাকিম।

অপরদিকে দৌছড়ি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী ২ জন। একজন নৌকা প্রতীকের মো. ইমরান। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। অপরজন ‘বিদ্রোহী প্রার্থী’ হাবিবুল্লাহ। তিনি বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি। তাঁর প্রতীক মোটরসাইকেল।

প্রতীক বরাদ্দ হলেও বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থীদের বহিষ্কার করেছে। বুধবার সন্ধ্যায় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. শফিউল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, নাইক্ষ্যংছড়ির দুই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দু’জন বিদ্রোহী প্রার্থী। একজন জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর, অপরজন হাবিবুল্লাহ। তারা দুজনই আওয়ামী লীগ নেতা। এ নির্বাচনে তারা দলের নির্দেশ মানেননি। এ কারণে তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। মঙ্গলবার বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের সভর সিদ্ধান্তমতে দলের সংবিধান অনুয়ায়ী সকল পদ-পদবিসহ সাধারণ সদস্য পদ থেকেও তাদের স্থায়ী বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ইউনুছ/ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm