চমেক বন্ধ হলো ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে, হল ছাড়তে হবে শিক্ষার্থীদের

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় অনিদিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সব শিক্ষার্থীকে বিকেল ৫টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (৩০ অক্টোবর) দুপুর ৩টায় কলেজের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। হামলা ও সংঘর্ষের পর দুপুর দেড়টায় এ সভা আহ্বান করেন চমেক অধ্যক্ষ ডা. সাহেনা আক্তার।

আরও পড়ুন : চট্টগ্রাম মেডিকেলে নাছির গ্রুপের অনুসারীদের মেরে রক্তাক্ত করল নওফেল গ্রুপ

এর আগে শুক্রবার রাতে আধিপত্য বিস্তারককে কেন্দ্র করে চমেকে রক্ত ঝরে। আ জ ম নাছির গ্রুপের অনুসারীদের মেরে রক্তাক্ত করে নওফেল গ্রুপ। এতে আহত হন দুই ছাত্রলীগ নেতা।

রাত ২টার দিকে শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেলের অনুসারীরা আ জ ম নাছিরের অনুসারীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় আহত হন ছাত্রলীগ নেতা চমেকের ৬১ ব্যাচের মাহফুজুল হক (২৩) ও ৬২ ব্যাচের নাইমুল ইসলাম (২০)। তাঁরা দুজনই আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী।

মেডিকেল

এদিকে রাতের ঘটনার জের ধরে শনিবার (৩০ অক্টোবর) সকাল ৯টায় ফের উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এসময় শিক্ষা উপমন্ত্রীর অনুসারীদের ধাওয়া খেয়ে চমেক প্রিন্সিপালের রুমে ঢুকে পড়ে আ জ ম নাছির অনুসারীরা। দুপুর ১টা পর্যন্ত সেখানেই অবরুদ্ধ ছিল তারা। পরে পুলিশ পাহাড়ায় তারা সেখান থেকে বের হয়।

আরও পড়ুন: বেড়াতে গিয়ে—কক্সবাজারে মদ খেয়ে চট্টগ্রামের ‘ছাত্রলীগ নেতার’ মৃত্যু 

এদিকে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় হাসপাতাল, কলেজ ক্যাম্পাস এবং প্রধান ছাত্র হোস্টেলজুড়ে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছিল। ঘটনার পর থেকেই ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছিল।

আলোকিত চট্টগ্রাম
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm