এবার সকাল—বিকাল অভিযানে সিটি করপোরেশন

নগরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে টানা অভিযান পরিচালনা করছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। শুধু সকালে নয়, বিকেলেও চলছে অভিযান।

অভিযানে রাস্তা, ফুটপাত ও নালা দখল করে গড়ে উঠা বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি চলছে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমও। এছাড়া নগরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে চলছে মশার ওষুধ ছিটানোর কাজ।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) সকালে নগরের আগ্রাবাদ সিজিএস কলোনি হয়ে তাহের চেম্বার, বাদামতলী, সোনালী ব্যাংক মোড় পর্যন্ত রাস্তার উভয়পাশে রাস্তা, ফুটপাত ও নালা দখল করে গড়ে উঠা অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

আরও পড়ুন: নগরের গুরুত্বপূর্ণ ৩ স্পটে অভিযান—রাস্তা দখল করে রাখা অর্ধশতাধিক দোকান উচ্ছেদ

একইদিন বিকালে নগরের শহীদ মিনার, থিয়েটার ইনস্টিটিউট হয়ে আমতল পর্যন্ত রাস্তার দুপাশে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। সেখানে রাস্তা, ফুটপাত ও নালার উপর থাকা অবৈধ স্থাপনাগুলো ভেঙে দেওয়া হয়।

চসিকের উপপ্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মো. মোরশেদুল আলম চৌধুরীর নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানে সহায়তা করেন পরিচ্ছন্নতা বিভাগের সুপারভাইজার ও সেবকরা।

থিয়েটার ইনস্টিটিউট সংলগ্ন ফুটপাতে উচ্ছেদ অভিযান

এর আগে মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) নগরের প্রবর্তক মোড় এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়।

আরও পড়ুন: এবার নগরের ৩ বাজারে পলিথিনবিরোধী অভিযান౼মামলা, জরিমানা

জানতে চাইলে চসিকের উপপ্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মো. মোরশেদুল আলম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, রাস্তা ও ফুটপাত দখলমুক্ত রাখতে এবং পথচারীদের নিরাপদ চলাচল নিশ্চিতে মাননীয় মেয়রের নির্দেশনা মোতাবেক আমাদের নিয়মিত উচ্ছেদ অভিযান চলছে। আজ (বুধবার) সকাল থেকে নগরের আগ্রাবাদ সিজিএস কলোনি হয়ে তাহের চেম্বার, বাদামতলী রাস্তা, ফুটপাত ও নালা দখল করে থাকা অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। বিকালে শহীদ মিনার, থিয়েটার ইনস্টিটিউট ও আমতল এলাকায় অভিযান চালানো হয়েছে। পাশাপাশি ওইসব এলাকায় পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধন কার্যক্রমও চলছে বিভিন্ন ওয়ার্ডে।

তিনি আরও বলেন, নগরের রাস্তা ও ফুটপাত দখল করে কাউকে ব্যবসার সুযোগ দেওয়া হবে না। যেখানে অনিয়ম সেখানেই অভিযান চলবে। পুনরায় যাতে দখল হয়ে না যায় সেজন্য তদারকি বাড়ানো  হবে। জনস্বার্থে আমাদের এ অভিযান কার্যক্রম চলমান থাকবে।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm