‘সিসিটিভি ফুটেজই কাল’ চোরচক্রের ৯ সদস্য পুলিশের জালে

নগরে সংঘবদ্ধ চোরচক্রের ৯ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে চুরির বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) রাত সাড়ে ১০টার দিকে আকবরশাহ্ থানার মীর আউলিয়া মাজার সংলগ্ন এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে আকবরশাহ থানা পুলিশ।

এর আগে চুরির ঘটনায় তিন চোরকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের দেওয়া তথ্যেই বাকিদের ধরা হয়।

আরও পড়ুন: ‘চোরচক্র’—চোরাই মোটরসাইকেলসহ গ্রেপ্তার ২

গ্রেপ্তাররা হলেন- আশ্রাফ আলী প্রকাশ আসিফ (৫২), মো. কামাল (৩২), মো. জামাল (৩৫), মো. নুর নবী (৩০), মো. ইমরান হোসেন (২৭), মো. কবির (৩৮), মো. রুবেল (৩২), মো. শাহীন (২৮), মো. নবী (২৬)।

পুলিশ জানায়, সিসিটিভি ফুটেজ থেকে সংঘবদ্ধ চোরচক্রের সদস্যদের শনাক্ত করা হয়েছে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত ২৪ জুন দুপুরে আকবরশাহ্ থানার ডিটি রোডের কর্নেলহাট প্রশান্তি আবাসিক গেইট সংলগ্ন পিপাসা টেলিকম নামক দোকানের শার্টার ও তালা ভেঙে চোরেরদল নগদ ৩৫ হাজার টাকা নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় পরে আকবরশাহ থানায় মামলা করেন দোকানের মালিক মো. বেলাল (৩৬)। মামলার পর তদন্তে নামে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গ্রেপ্তার আসামিরা সংঘবদ্ধ চোরচক্রের সক্রিয় সদস্য। নগরের বিভিন্ন থানা এলাকায় পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী বিভিন্ন মার্কেটের কিংবা দোকানের সামনে অবস্থান করে কৌশলে সার্টার ভেঙে দোকানে প্রবেশ করে মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। এদের ১০-১২ জনের একটি দল রয়েছে তাদের।

আরও পড়ুন: পুলিশের জালে ২ তরুণ চোর, চুরি হওয়া মালামাল উদ্ধার

তারা ঘটনাস্থলে সংঘবদ্ধভাবে অবস্থান করে আশেপাশের লোকজনের গতিবিধি খেয়াল করে সুযোগ বুঝে সহযোগীদের দোকানের ভিতরে ঢুকিয়ে দেয়। এতে বাধার সম্মুখীন হলে তারা অস্ত্রশস্ত্র ব্যবহার করে। আসামিরা একই ঘটনায় এরআগেও বেশ কয়েকবার গ্রেপ্তার হয়েছে।

পুলিশ আরও জানায়, গ্রেফতার আসামিদের কাছ থেকে ১টি কিরিছ, ২টি ছুরি, ২টি কার্টার, ১টি কাটার প্লাস, ২টি হাতুড়ি এবং ১টি রশি জব্দ করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে থানায় নিয়মিত মামলা করা হয়েছে এবং আজ (বুধবার) আসামিদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

আরবি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm