ভাইয়ের হাতে ভাই খুন হাটহাজারীতে, খুনের ছক বিদেশে বসেই

মধ্যপ্রাচ্য থাকেন বড় ভাই। বাড়িতে একটি ভবন নিয়ে ছোট ভাইয়ের সঙ্গে দীর্ঘদিনের বিরোধ শেষ হলো খুনের মধ্য দিয়ে। বিদেশে বসেই খুনের পরিকল্পনার ছক এঁকে বড় ভাই মঞ্জুরুল আলম দেশে ফিরেন ৪ দিন আগে। আর চারদিন পর রাতে একসঙ্গে ভাত খেয়ে খুন করেন আপন ভাইকে!

এদিকে খুনের ঘটনাটিকে ডাকাতির ঘটনা বলে প্রচার করা হলেও মধ্যপ্রাচ্য থেকে আসা মঞ্জুরুলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নিহত ছোট ভাই মো. এরশাদ (৩৫) হাটহাজারী উপজেলার উত্তর মীরেরখীল এলাকার মো. খোরশেদ আলমের ছেলে। মঙ্গলবার (১৪ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন: বরের বাড়িতে হামলা কনেপক্ষের—যুবক খুন, রক্তাক্ত ১০

জানা গেছে, নিহত এরশাদের হাটহাজারী পৌরসভার কাচারী রোডের এন জহুর শপিং সেন্টারে কসমেটিকসের দোকান রয়েছে। রাতে দোকান থেকে বাসায় ফিরে দুই ভাই একসঙ্গে ভাত খান। চারদিন আগে বিদেশফেরত ভাইয়ের সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে তর্ক হয়।

ঘটনার দিনও এ নিয়ে তর্কের একপর্যায়ে আপন ভাই এরশাদকে নিজ ঘরে ছুরি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে। এসময় এরশাদের চিৎকার শুনে জসিম নামের এক প্রতিবেশি জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯ কল করে।

হাটহাজারী মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে এরশাদের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠায় থানা পুলিশ। এ ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন: ফেসবুক লাইভে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, স্বামীকে ঝুলতে হবে ফাঁসির দড়িতে

ঘটনার তদন্ত কর্মকর্তা মো. মোজাহিদ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ৯৯৯ কল পেয়ে উত্তর মীরেরখীল এলাকার এরশাদ নামের একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। কী কারণে এরশাদ খুন হয়েছে তা তদন্তের পর জানা যাবে। লাশ তদন্তের জন্য চমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সিএম/এসি
1 মন্তব্য
  1. আলী আমজাদ আজাদ বলেছেন

    সার্থের কাছে সহোদর রক্তে রণ্জ্ঞিত হয়, ভাই নয় সে নিষ্ঠুর ঘাতক।দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm