ফেসবুকে সরব—প্রকাশ্যে ঘুরছেন, তবুও পুলিশের চোখে পলাতক সেই ছাত্রলীগ নেতা

ফেসবুকে তিনি বেশ সরব। নেতার ছবি দিয়ে পোস্টও করেন। ঘোরাফেরাও করেন বুক ফুলিয়ে। কিন্তু এরপরও পুলিশ এই ছাত্রলীগ নেতাকে চার মাসেও খুঁজে পাচ্ছে না। অথচ এই নেতাই চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনের দিন পাথরঘাটায় প্রকাশ্যে গুলি ছুঁড়েছিল।

চসিক নির্বাচনে পাথরঘাটার একটি কেন্দ্রে প্রতিপক্ষকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়া এই ছাত্রলীগ নেতার নাম আ ফ ম সাইফুদ্দিন। সাইফুদ্দিন। তিনি চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি। ঘটনার পর কিছুদিন গা ঢাকা দিয়ে থাকলেও এখন তিনি প্রকাশ্যে।

গত ২৭ জানুয়ারি চসিক নির্বাচনের দিন দুপুরের দিকে পাথরঘাটা ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় কালো প্যান্ট ও জ্যাকেট পরা এক যুবক প্রতিপক্ষকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ ওই যুবকের খোঁজে নামে।

পুলিশ নিশ্চিত হয়, অস্ত্র হাতে ভাইরাল হওয়া ওই যুবক চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আ ফ ম সাইফুদ্দিন।

ওই সময় কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নেজাম উদ্দিন সংবাদমাধ্যমকে জানান, পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর তাকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

কিন্তু চার মাসেও এ ব্যাপারে পুলিশকে কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি। এদিকে গত কয়েকদিন আগে সাইফুদ্দিনকে এক মন্ত্রীর সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখা যায়। গত ৩০ মে নিজের ফেসবুক আইডি থেকে নগর ছাত্রলীগ সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমুর সঙ্গে একটি ছবিও পোস্ট করেন সাইফুদ্দিন। ছবি ক্যাপশনে লিখেন, ‘দীর্ঘদিন পর আবারও দেখা।’

অস্ত্র হাতে ভাইরাল হওয়া যুবক প্রকাশ্যে থাকার পরও কেন গ্রেফতার হচ্ছেন না জানতে যোগাযোগ করা হয়েছিল কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নেজাম উদ্দিনের সঙ্গে। তিনি শুধু বলেন, সাইফুদ্দিনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm