৭ ধাপে উত্তীর্ণ হয়েও পুলিশের চাকরিটা পেলেন না আসপিয়া

পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি পাচ্ছেন আসপিয়া ইসলাম। অভাবের সংসারে আসবে স্বচ্ছলতা, ঘুরে দাঁড়াবেন পরিবার নিয়ে। সবকিছু ঠিকঠাক। কিন্তু না সেই চাকরি আর কপালে জুটল না আসপিয়ার!

চাকরি পাওয়ার সব যোগ্যতাই ছিল আসপিয়ার। কিন্তু পরিবারের এক খণ্ড জমি না থাকার কারণে কপাল পুড়েছে তাঁর। পুলিশ হওয়ার স্বপ্ন অধরাই থেকে গেল আসপিয়ার!

এমন ঘটনা ঘটেছে বরিশালে।

জানা যায়, নিয়োগ পরীক্ষার সব ধাপে উত্তীর্ণ হন আসপিয়া। কিন্তু পরিবারের নিজস্ব কোনো জমি না থাকায় তার চাকরি হয়নি। অথচ নিয়োগের সাতটি ধাপে উত্তীর্ণ হন তিনি। শারীরিক যোগ্যতা, লিখিত পরীক্ষা, স্বাস্থ্য পরীক্ষা, মৌখিকসহ সাতটি ধাপে উত্তীর্ণ হয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ে পঞ্চম হন তিনি।

আরও পড়ুন : ১০০ টাকায় পুলিশে চাকরি পেলেন ১২ জন

চাকরি না হওয়ায় আসপিয়া দ্রুত ছুটে যান ডিআইজি এসএম আকতারুজ্জামানের কার্যালয়ে। জানতে চান চাকরি না হওয়ার কারণ।

ডিআইজি জানালেন, নিজ পরিবারের কোনো জমি না থাকলে চাকরি দেওয়ার আইন নেই।

এরপর স্বপ্নভঙ্গের একবুক হতাশা নিয়ে দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত পুলিশ লাইন্সের সামনে বসে থাকেন আসপিয়া।

২০২০ সালে এইচএসসি পাস করা আসপিয়া ১৫ বছর ধরে খুন্না-গোবিন্দপুর গ্রামের এক ব্যক্তির জমিতে আশ্রিত হিসেবে পরিবার নিয়ে থাকছেন। তাঁর বাবা সফিকুল ইসলাম মারা গেছেন। তিন বোন, এক ভাই ও মা নিয়েই পরিবার। ভাই কাজ করেন পোশাক কারখানায়।

আলোকিত চট্টগ্রাম
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm