পাহাড়ধস—বালুখালী ও চাকমারকুলে রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ নিহত

কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে পাহাড়ধসে  নিহত হয়েছেন দুই রোহিঙ্গা নাগরিক।

তারা হলেন- উখিয়ার বালুখালী ময়নার ঘোনা (ক্যাম্প-১২) ক্যাম্পের (জে-এ-৭ ব্লকের) মৃত অছিউর রহমানের ছেলে রহিম উল্লাহ (৩৫) ও টেকনাফের চাকমারকুল (ক্যাম্প ২১) ক্যাম্পের এ-২ ব্লকের শাকের উল্লাহর স্ত্রী নুর হাসিনা (২০)।

শনিবার (৫ জুন) সকালে সাড়ে ১০টার সময় মাটি কাটাতে গিয়ে পাহাড়ধসে পড়লে ঘটনাস্থলে রহিম উল্লাহর মৃত্যু হয়। আমর্ড পুলিশ সদস্যরা খবর পেয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে ক্যাম্প প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করে।

বালুখালী ময়নার ঘোনা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দায়িত্বরত আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক পুলিশ সুপার মো. শিহাব কায়সার বলেন, ‘পাহাড়ধসে মারা যাওয়া রহিম উল্লাহর মরদেহ উদ্ধার করে ক্যাম্প প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করেছি।’

অন্যদিকে দুপুর ১টায় চাকমারকুল ক্যাম্পের এ-২ ব্লকে টানা বর্ষণে পাহাড়ধসে পড়ে মৃত্যু হয়েছে নুর হাসিনা নামের এক নারীর। খবর পেয়ে আশপাশের লোকজনের সহায়তায় ক্যাম্পে টহলরত এপিবিএন অফিসার ও ফোর্স হাসিনাকে দ্রুত উদ্ধার করে সেভ দ্য চিলড্রেন হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ২১ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জ সাধনা ত্রিপুরা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. সামসু দ্দৌজা দুই রোহিঙ্গা নিহতের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে পাহাড়ধস মোবাবিলায় নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তারপরও কেন পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটেছে তা খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

বলরাম/ডিসি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm