এএসআই আরিফুলের নেতৃত্বে দোকানে হামলা—ভাঙচুর, দুজনকে মারলও পুলিশ!

আনোয়ারায় এক চায়ের দোকানে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে রাঙ্গাদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির উপসহকারী পুলিশ পরিদর্শক (এএসআই) আরিফুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে উপজেলার বারশত ইউনিয়নের চালিতাতলী এলাকার বাসেক স্টোরে এ ঘটনা ঘটে।

দোকান মালিক মো. ইলিয়াছ অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাঙ্গাদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আরিফুল ইসলামসহ কয়েকজন পুলিশ হঠাৎ এসে আমার দোকানে ভাঙচুর শুরু করে। এ সময় আমার ছোট ভাই এবং এক ক্রেতাকেও মারধর করা হয়।

আরও পড়ুন: আনোয়ারায় নির্বাচনে হামলা—সহিংসতায় যুবক খুন

তিনি আরও বলেন, শুধু দোকান ভাঙচুর নয়, পাশের ইউপি সদস্য কাইয়ুমের অফিসও ভাঙচুর করে পুলিশ সদস্যরা। পরে জানতে পারি সকালে পারকি এলাকার কলিম উদ্দিন মাতব্বরের গোষ্ঠীর আর মধ্যমপাড়া সোসাইটির মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এর জেরে দোকান ও অফিসে পুলিশের এ হামলা।

মারধরের শিকার মমতাজ জানান, সন্ধ্যায় আমরা দোকানে বসে চা খাচ্ছিলাম। এ সময় হঠাৎ কয়েকজন পুলিশ এসে আমাদের লাঠি দিয়ে মারধর করে। এ সময় তারা চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করে।

ইউপি সদস্য কাইয়ুম বলেন, পুলিশ সদস্যরা এসে আমার অফিসের চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করেছে। পরে তারা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা জানালে আমি থানায় অভিযোগ করিনি। তবে ওসিকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। ওসি বিষয়টি দেখার আশ্বাস দিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযোগ অস্বীকার করে রাঙ্গাদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির উপসহকারী পুলিশ পরিদর্শক আরিফুল ইসলাম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, মাদ্রাসার ঘটনা নিয়ে এলাকার দুগ্রুপের লোকজন ওই চায়ের দোকানে গিয়েছিল। আমরাও গিয়েছিলাম। তবে সেখানে কোনো ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেনি।

ইমরান/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm