জয়রথ ছুটছে ব্রাজিলের, দুর্দান্ত আর্জেন্টিনা—রোববার মুখোমুখি

জয়রথ ছুটছে ব্রাজিলের। কোপা আমেরিকার আগে টানা ছয় ম্যাচ জিতে শেষ করেছিল বিশ্বকাপ বাছাইয়ের যাত্রা। এবার বাছাই মিশনের নতুন যাত্রার শুরুটাও জয় দিয়েই করলো তিতের শিষ্যরা। চিলির বিপক্ষে তারা জিতেছে ১-০ গোলে। থেমে নেই আরেক চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনাও। ভেনেজুয়েলাকে ৩-১ গোলে পরাস্ত করেছে কোপা জয়ী আর্জেন্টিনা।

প্রতিপক্ষের মাঠে খেলতে গিয়ে অবশ্য জয় পেতে ঘাম ঝরেছে ব্রাজিলের। ম্যাচের ৬৪ মিনিটের মাথায় বদলি হিসেবে নামা এভারটন রিভেইরোর একমাত্র গোলে পূর্ণ ৩ পয়েন্টের নিশ্চয়তা পেয়েছে সেলেসাওরা। চলতি লাতিন অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এটি তাদের টানা সপ্তম জয়।

আরও পড়ুন: পরাজয় মানতে না পেরে বিষ খেল ব্রাজিল সমর্থক

নিজেদের ঘরের মাঠের ম্যাচটিতে ব্রাজিলের কঠিন পরীক্ষাই নিয়েছে চিলি। বিশেষ করে চিলির সামনে প্রথমার্ধে ঠিক গুছিয়েই উঠতে পারেনি সেলেসাওরা। একের পর এক আক্রমণে ব্রাজিলকে চাপে রেখেছিল চিলি। কিন্তু কাজের কাজ গোল তারা পায়নি। উল্টো হজম করেছে দ্বিতীয়ার্ধে।

দ্বিতীয়ার্ধের নেইমারের শট ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন চিলির গোলরক্ষক। কিন্তু ফিরতি বলে সহজেই গোল করেন রিভেইরো। এই এক গোলেই নিশ্চিত হয়ে যায় ব্রাজিলের জয়। কষ্টার্জিত এ জয়ের সুবাদে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান আরও সুসংহত হলো ব্রাজিলের। এখনও পর্যন্ত খেলা সাত ম্যাচের সবকয়টি জিতে তাদের সংগ্রহ ২১ পয়েন্ট। সমান ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আর্জেন্টিনা।

দুইয়ে থাকলেও বিশ্বকাপ বাছাইয়ের এবারের মিশনটা সহজ জয়েই শুরু করলো আর্জেন্টিনা। ভেনেজুয়েলার মাঠ থেকে ৩-১ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছে লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা। যার সুবাদে বিশ্বকাপের টিকিট পাওয়ার দৌড়েও বেশ খানিকটা এগিয়ে গেলো দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

আরও পড়ুন: কোপার ১৫ শিরোপা আর্জেন্টিনার ঘরে, ব্রাজিলের ৯

ভেনেজুয়েলার ইউসিভি অলিম্পিক মাঠে ক্লিন শিট নিয়েই মাঠ ছাড়তে পারতো আর্জেন্টিনা। কিন্তু ম্যাচের একদম শেষ সময়ে গিয়ে পেনাল্টিতে গোল হজম করে তারা। ম্যাচের পঞ্চম মিনিটে দারুণ সুযোগ আসে মেসির সামনে। কিন্তু অল্পের জন্য ক্রসবারের ওপর দিয়ে চলে যায় আর্জেন্টাইন অধিনায়কের শট। খানিক বাদে জোরালো শট নেন রদ্রিগো ডি পল। তবে তা ঠেকিয়ে দেন ভেনেজুয়েলার গোলরক্ষক।

২৯ মিনিটের মাথায় মেসির পায়ে বিপজ্জনক ফাউল করেন মার্টিনেজ। রেফারি ভিডিও এসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সাহায্য নেন। ভিএআরের রিপ্লেতে দেখা যায়, ডি-বক্সের ঠিক বাইরে করা মার্টিনেজের ফাউলটি ছিল বেশ ভয়াবহ। তাই সরাসরি লাল কার্ড দেখানো হয় মার্টিনেজকে, দশজনের দলে পরিণত হয় স্বাগতিকরা।

আর্জেন্টিনার স্বস্তির খবর হলো, কড়া ট্যাকেলের পরেও উঠে দাঁড়াতে সময় লাগেনি মেসির। দশজনের প্রতিপক্ষের বিপক্ষে গোল দিতেও বেশি সময় নেয়নি আর্জেন্টিনা। প্রথমার্ধের অতিরিক্ত যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে গোল করেন লাউতারো। দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের ম্যাচের ৭১ মিনিটের সময় লাউতারোর কাছ থেকে বল পেয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন হোয়াকিন কোররেয়া। নিখুঁত ফিনিশিংয়ে স্কোরলাইন ২-০ করেন তিনি।

এর মিনিট তিনেক পর লাউতারোর শট ঠেকিয়ে দেন ভেনেজুয়েলা গোলরক্ষক। তবে ফিরতি বলে স্কোরশিটে নাম তুলতে ভুল করেননি অ্যাঞ্জেল কোররেয়া। ম্যাচের একদম শেষ সময়ে গিয়ে গোল হজম করে আর্জেন্টিনা। বদলি হিসেবে নামা আলেজান্দ্রো গোমেজ ফাউল করেছিলেন সোতেলদোকে।

রেফারি প্রথমে সেটিকে গুরুত্ব দেননি, সংকেত দেন খেলা চালিয়ে নেয়ার। কিন্তু ভিডিও এসিস্ট্যান্ট রেফারি তাকে এটি রিপ্লে দেখার পরামর্শ দেন। প্রায় ৫ মিনিটের বেশি সময় ধরে রিপ্লে দেখেন রেফারি। যেনো ঠিক সিদ্ধান্তেই পৌঁছতে পারছিলেন না তিনি। শেষ পর্যন্ত বাজান পেনাল্টির বাঁশি। স্পটকিক থেকে সহজেই স্কোর শিটে নাম লেখান সোতেলদো। ভেনেজুয়েলা পায় এক গোলের সান্ত্বনা, আর্জেন্টিনা মাঠ ছাড়ে ৩-১ গোলের জয় নিয়ে।

আগামী রোববার বাংলাদেশ সময় দিনগত রাত ১টায় মুখোমুখি হবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা।

এসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm