চকরিয়ায় খুন—সেই আদর চেয়ারম্যানকেই প্রধান আসামি করে মামলা

চকরিয়ায় আলোচিত আমির হোসেন খুনের ঘটনায় অবশেষে মামলা নিয়েছে পুলিশ। মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে ডুলাহাজারা ইউনিয়নর পরিষদের চেয়ারম্যান হাসানুল ইসলাম আদরকে।

এর আগে গত বুধবার (২৫ মে) দুপুরে নিহত মো.আমির হোসেনের স্ত্রী ছকিনা ইয়াছমিন বাদি হয়ে চকরিয়া থানায় এজাহার দায়ের করেছিলেন।

এরপর এজাহারটি বৃহস্পতিবার (২৬মে) দুপুরে মামলা হিসেবে এন্ট্রি করে চকরিয়া থানা। মামলায় চেয়ারম্যান হাসানুল ইসলাম আদরসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করে ১০/১২ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: চকরিয়ায় খুন—আদর চেয়ারম্যানের সামনেই কোপানো হয় আমিরকে, পালাতে চাইলে গুলি

Yakub Group

মামলার আসামিরা হলেন- ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও মকসুদ মিয়ার ছেলে হাসানুল ইসলাম আদর (৩৫), একই ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের ডুমখালীর ইউছুপ মিয়ার ছেলে আবদুর রহমান (৩৬), ফরিদ আলমের ছেলে সালাহউদ্দিন (৩২), ছরওয়ার আলম (৩৬), ৪ নম্বর ওয়ার্ডের উলুবুনিয়া এলাকার মৃত ছাবের আহমদের ছেলে সিরাজ মিয়া (৩০), ২ নম্বর ওয়ার্ডের ডুমখালীর ছাবের আহমদের ছেলে রেজাউল (২৯), মৃত আহমদ হোসেনের ছেলে আবু ছালাম (৪৮), জামাল উদ্দিনের ছেলে বাহাদুর মিয়া(৪৪), টুক্কু মিয়ার ছেলে ছরওয়ার আলম (৩১) এবং আকবর আহমদের ছেলে বাবু মিয়া (২২)। এছাড়া অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জন রয়েছে।

মামলার বাদী নিহত মো.আমির হোসেনের স্ত্রী ছকিনা ইয়াছমিন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হাসানুল ইসলাম আদরের পক্ষে ভোট না করায় আমার স্বামীকে পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে আবদুর রহমান, সালাহউদ্দিনসহ অপরাপর সন্ত্রাসীরা সন্ত্রাসীরা। আমি খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। 

যোগাযোগ করা হলে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, গত বুধবার দুপুরে নিহত আমির হোসেনের স্ত্রী ছকিনা ইয়াছমিন বাদী হয়ে খুনের ঘটনায় একটি এজাহার দেন। এজাহারটি তদন্ত করে মামলা হিসেবে এন্ট্রি করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মুকুল/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm