এই জায়গা ফেরত দেব না—প্রয়োজনে পার্ক বন্ধ করে গরুর খামার বানানোর হুঙ্কার

মিরসরাইয়ে আরশিনগর ফিউচার পার্ক নামের বিনোদন কেন্দ্র গড়ে ওঠার পর নড়েচড়ে বসেছে রেলওয়ে এবং সড়ক ও জনপদ বিভাগ (সওজ)।

রেলওয়ে এবং সওজ বিভাগের জমি দখল করে পার্কটি তৈরি করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে কর্ণধার মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নাছির উদ্দিন দিদারের বিরুদ্ধে।

সরকারি জায়গা দখল করার অভিযোগে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল চিঠি দিলেও তা আমলে নেয়নি পার্ক কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে সড়ক ও জনপদ বিভাগের (সওজ) জমি দখল করে পার্কের দৃষ্টিনন্দন ফটক, আউটডোর শপ, পার্কিংসহ নানা স্থাপনা তৈরি করা হয়েছে। জমি দখলের বিষয় নিশ্চিত হওয়ার পর তারাও হাঁটছে রেলওয়ের পথে। দু’-একদিনের মধ্যে সওজ বিভাগ উচ্ছেদ নোটিশ দেবে বলে সূত্র জানিয়েছে।

জানা গেছে, মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নাছির উদ্দিন দিদার সরকারি জমি দখল করে পার্ক নির্মাণ করেন। গত দুই বছর ধরে দর্শনার্থীরাও ১০০ টাকা দিয়ে টিকিট কেটে পার্কে যাতায়াত করছেন।

এদিকে কেন এতদিন দুই গুরুত্বপূর্ণ সরকারি প্রতিষ্ঠান পার্ক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি সেই প্রশ্নও উঠেছে।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের কানুনগো কাউছার হামিদ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, আরশিনগর ফিউচার পার্ক কর্তৃপক্ষকে আমরা দুইবার উচ্ছেদ নোটিশ দিয়েছি। তখন করোনা পরিস্থিতির জন্য আর উচ্ছেদ করা হয়নি। শিগগিরিই রেলওয়ের জমি থেকে তাদের উচ্ছেদ করা হবে।

একই প্রসঙ্গে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের প্রধান ভূসম্পত্তি কর্মকর্তা কঙ্কন চাকমা বলেন, রেলওয়ের জায়গা অবৈধভাবে দখল করার সুযোগ নেই। অবশ্যই এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী (এসডি) রোকন উদ্দিন খালেদ চৌধুরী আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, আমরা ইতোমধ্যে পার্কে লোক পাঠিয়েছি। দু’-একদিনের মধ্যে উচ্ছেদ নোটিশ দেওয়া হবে। কার্যকর ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।

রেলওয়ে ও সওজের জমি দখল করে পার্ক তৈরির বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নাছির উদ্দিন দিদার আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ১৯৮৪ সাল থেকে রেলওয়েকে আমি খাজনা দিয়ে বৈধভাবে জমি ব্যবহার করছি। সওজের জায়গা আমার পার্কের সামনের অংশে।

রেলওয়ের দেওয়া উচ্ছেদ নোটিশ এবং সওজ বিভাগের বক্তব্যের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে নাছির উদ্দিন দিদার বলেন, এ রকম অনেক কোম্পানি রেলওয়ে এবং সওজের জমি দখল করে ভবন করছে। কারো বিরুদ্ধেতো কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। আমার এতো সুন্দর প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে আমি প্রয়োজনে পার্ক বন্ধ করে গরুর খামার খুলবো!

আজিজ/ডিসি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm