‘উন্নয়ন—অগ্রগতিতে নারীর ক্ষমতায়ন জরুরি’

বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি টেকসই করতে নারীর ক্ষমতায়ন অত্যন্ত জরুরি। দেশের অর্ধেক জনসংখ্যার নারীদের পিছিয়ে রেখে কোনো উন্নয়ন টেকসই হতে পারে না।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) বান্দরবান জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অর্থায়নে ও সিমাভি নেদারল্যান্ডস’র কারিগরি সহায়তায় বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ আয়োজিত সভায় জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি এসব কথা বলেন।

আরও পড়ুন: তিন স্পট থেকে নারীসহ গ্রেপ্তার ৫, সঙ্গে শতাধিক লিটার মদ

তিনি বলেন, নারীদের স্বাস্থ্য সচেতনতার পাশাপাশি আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়াটাও জরুরি। যার মধ্যদিয়ে নারী সত্যিকার অর্থে ক্ষমতায়িত হবে। নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করলেই টেকসই উন্নয়ন সম্ভব। নারীর ক্ষমতায়নে পুরুষদের ভূমিকাও গুরুত্বপূর্ণ।

Thai Food

সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনন্যা কল্যাণ সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক ডনাই প্রু নেলী। বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মো. শেখ সাদেক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. কুদ্দুস ফরাজী, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপপরিচালক ডা. অং চালু, সমাজসেবা বিভাগের উপপরিচালক মিল্টন মুহুরী, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. সাইফুদ্দিন মোহাম্মদ হাসান আলী, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক আতিয়া চৌধুরী, থানচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতাউল গনি ওসমানী, রোয়াংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফোরকান এলাহি অনুপম, গ্রাউস’র নির্বাহী পরিচালক চাই সিং মং, তহজিংডং প্রতিনিধি ইতি বিশ্বাস, এনজিও ও সিভিল সোসাইটির প্রতিনিধি রূপনা দাস, ইউএনএফপিএ প্রতিনিধি ধনরঞ্জন ত্রিপুরা, মানবাধিকার কর্মী অং চ মারমা এবং ইউনাইটেড পারপাসের জেলা প্রতিনিধি অপুল ত্রিপুরা।

আরও পড়ুন: দুই অভিযানে ১৪ কেজি গাঁজা উদ্ধার—নারীসহ আটক ৬

অনন্যা কল্যাণ সংগঠনের প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর দিধিতি চাকমার উপস্থাপনায় প্রকল্পের কার্যক্রম ও অগ্রগতি উপস্থাপন করেন বিএনপিএস’র মাস্টার ট্রেইনার সুমিত বণিক।

অনুষ্ঠানে গার্লস ক্লাবের সদস্যরা স্টলে তাদের কার্যক্রম প্রদর্শন করেন। এ সময় আমন্ত্রিত অতিথিরা এসব স্টল পরিদর্শন করে তাদের অভিমত ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে অনন্যা কল্যাণ সংগঠন, গ্রাউস, তহজিংডংয়ের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm