ইয়াসের প্রভাব: সেন্টমার্টিন দ্বীপে বেড়েছে পানির উচ্চতা, জেটিতে ভাঙন

ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’র প্রভাবে দুইদিন ধরে টেকনাফ উপকূলে বাতাসের গতি বেড়েছে। একইসঙ্গে কয়েক ফুট বেড়েছে জোয়ারের পানির উচ্চতা। সমুদ্রের বিশাল বিশাল ঢেউয়ের ক্রমাগত আঘাতে সেন্টমার্টিন দ্বীপ জেটির একাধিক স্থানে দেখা দিয়েছে ভাঙন।

এছাড়া ঢেউয়ের আঘাতে ৪টি ফিশিং ট্রলার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বাতাসে উপড়ে পড়েছে কয়েকটি নারকেল গাছ। দ্বীপের উত্তর ও পশ্চিম অংশে ভুমি ধসে গেছে।

সেন্টমার্টিন দ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান নুর আহমদ মঙ্গলবার (২৫ মে) রাতে আলোকিত চট্টগ্রামকে জানান, সেন্টমার্টিন দ্বীপে জোয়ারের পানিও অস্বাভাবিক বেড়েছে। এমনকি জোয়ারের পানি বাজারে উঠেছে। ঢেউয়ের আঘাতে ৪টি ফিশিং ট্রলার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বাতাসে পুলিশ ফাঁড়ির পাশে ৫টি নারিকেল গাছ উপড়ে পড়েছে। ঢেউয়ের আঘাতে সেন্টমার্টিন দ্বীপ জেটির একাধিক স্থানে ফাটল ও ভাঙন ধরেছে। তাছাড়া দ্বীপের উত্তর ও পশ্চিম অংশে ভূমি ধসে গেছে। মাছ ধরার ট্রলারগুলো নিরাপদে রাখা হয়েছে।

এদিকে টেকনাফ উপজেলা প্রশাসন ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্ততি গ্রহণ করেছে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী।

ডিসি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm