স্কুল ছাত্র—ছাত্রীরা বিআরটিসির ১০ বাসে চড়বে শনিবার থেকে

দীর্ঘ ১৮ মাস বন্ধ থাকার পর শনিবার থেকে আবারো চালু হচ্ছে শিক্ষার্থীদের স্কুলবাস। শিক্ষার্থীদের যাতায়াত সুরিধার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ১০টি দ্বিতল বাস নিয়মিত পরিবহন করবে শিক্ষার্থীদের। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মো. মারুফ উল্লাহর সঙ্গে বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

জানা গেছে, শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০ সালের ২৬ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ১০টি দ্বিতল বাস চালু করে বিআরটিসি। ১৭ মার্চ করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে স্কুল বন্ধ হয়ে গেলে বাসগুলো হাটহাজারী উপজেলার নতুনপাড়া বিআরটিসি বাস ডিপোতে পড়ে ছিল। দীর্ঘ ১৮ মাস পর স্কুল খোলার খবরে শিক্ষার্থীদের জন্য বাস চালুর পদক্ষেপ নেয় বিআরটিসি।

আরও পড়ুন: স্কুল-কলেজের দুয়ার খুলছে—মানতে হবে ৮ নির্দেশনা

দীর্ঘদিন অলস পড়ে থাকায় বাসগুলোর বিভিন্ন যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে যায়। স্কুল খোলার ঘোষণার পর এগুলো মেরামত ও জীবাণুমুক্ত করে শিক্ষার্থীদের যাতায়াত উপযোগী করে তোলা হয়। এছাড়া করোনাকালীন চালক-হেলপার চলে যাওয়ার পর আবারও তাদের সঙ্গে আলাপ করে ফিরিয়ে আনতে সময় লেগে যায়। ফলে ১২ সেপ্টেম্বর স্কুল খোলার দিন সড়কে নামতে পারেনি বাসগুলো।

ইতোমধ্যে বাসগুলো মেরামতের পর ডিপোর মাঠে বারবার ট্রায়াল দেওয়া হয়েছে। আগামী বুধ ও বৃহস্পতিবার নগরের সড়কে ট্রায়ালে নামবে শিক্ষার্থীদের ১০টি বাস। ট্রায়াল শেষে শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) পুরোদমে চালু হবে বাস সার্ভিস। প্রাথমিকভাবে বাসের সময়সূচি নির্ধারণ করা না গেলেও নগরের স্কুলের ক্লাসের সময়সূচির সঙ্গে সমন্বয় করে বাসের সিডিউল নির্ধারণ করা হবে।

Thai Food

জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মো. মারুফ উল্লাহ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী বাস সার্ভিস চালুর বিষয়টি তদারকি করছেন। এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর শনিবার থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য বাস সার্ভিস চালু হবে। এর আগে বুধ ও বৃহস্পতিবার বাসগুলো সড়কে ট্রায়াল করবে। আমরা বিআরটিসি ও শিক্ষার্থী প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসে বিষয়টি নির্ধারণ করে দিয়েছি। আশা করি, আগামী বুধবার শিক্ষার্থীরা বাসে চড়ে বিদ্যালয়ে যাতায়ত করবে।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে করোনা : স্কুল-কলেজ খোলার দিনে ‘বড়’ খবর

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিআরটিসি বাস ডিপো ম্যানেজার মো. আবদুল লতিফ বলেন, স্কুল খুললেও গাড়িগুলো দীর্ঘদিন বসে থাকায় কিছুটা মেরামত করতে হয়েছে। এছাড়া চালক-হেলপার সংকটও আছে। এজন্য স্কুল খোলার দিন বাস চালু সম্ভব হয়নি। আগামী শনিবার সড়কে চলাচল করবে শিক্ষার্থীদের স্কুলবাস।

শিক্ষার্থী প্রতিনিধি মিনহাজ চৌধুরী রিফাত বলেন, স্কুল খোলার পর স্কুলবাস চালু ব্যাপারে আমরা মাননীয় জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) ও বিআরটিসির সঙ্গে বসে সমন্বয় করে কাজ শুরু করি। দীর্ঘদিন বাসগুলো বসে থাকায় মেরামত ও জীবাণুমু্ক্ত করতে সময় লেগেছে। এছাড়া ১০টি বাসের চালক ও হেলপারদের ফিরিয়ে আনতে হয়েছে। আগামী বুধ ও বৃহস্পতিবার ট্রায়াল এবং শনিবার পুরোদমে শিক্ষার্থীদের জন্য বাস চালু হবে।

এসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm