রাতের আঁধারে পাহাড়ধস: ঘুমের মধ্যেই চিরঘুমে ৫ ভাই-বোন

টেকনাফে রাতের আঁধারে পাহাড় ধসে পাঁচ ভাই-বোনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ ভাই ও ২ বোন রয়েছে।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দিবাগত রাতে হ্নীলা ইউনিয়নের ভিলিজারপাড়ার সৈয়দ আলমের বাড়িতে এ পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে।

এর আগে গত মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দুপুরে উখিয়ায় বালুখালী শরণার্থী ক্যাম্পে-১ এ পাহাড়ধসের ঘটনায় ৫ রোহিঙ্গা নিহত হয়। এছাড়া এদিন পানিতে ডুবে মারা গেছে আরও এক রোহিঙ্গা। নিহতদের মধ্যে একাধিক শিশু ছিল।

স্থানীয় জানান, পাহাড়ধসের কারণে মাটির নিচে চাপা পড়ে যাওয়া সৈয়দ আলমের ৫ সন্তানের মরদেহ উদ্ধার করে স্থানীয়রা। তবে নিহতদের পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি। পরিচয় শনাক্তের কাজ চলছে।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হাফিজুর রহমান সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার মধ্যরাতে টেকনাফের হ্নীলার ভিলিজারপাড়ায় সৈয়দ আলম নামের এক ব্যক্তির বাড়িতে পাহাড় ধসে ওই পরিবারের ৩ ছেলে ও দুই মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে রয়েছে।

এদিকে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ঝুঁকিপূর্ণ বসতিগুলো সরিয়ে নেয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

বলরাম/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm