‘চোরাকারবারির বাড়ি’—বিজিবির ৮ সাইনবোর্ডের দুটি গেল কোথায়?

হবিগঞ্জের মাধবপুরে ৮ অপরাধীর বাড়ির সামনে ‘মাদক ব্যবসায়ীর বাড়ি’ ও ‘চোরাকারবারির বাড়ি’ লিখে লাল সাইনবোর্ড টাঙিয়েছিল বিজিবি। তবে এর মধ্যে দুটি সাইনবোর্ড রাতারাতি উধাও হয়ে গেছে। কারা সাইনবোর্ডগুলো খুলে নিয়েছে নিশ্চিত হওয়া না গেলেও বিজিবির ধারণা চোরাকারবারিরাই সাইনবোর্ডগুলো খুলে নিয়ে গেছে।

জানা যায়, শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) রাতে উপজেলার রাজেন্দ্রপুর এলাকার দুটি সাইনবোর্ড কে বা কারা খুলে ফেলে। পরদিন সাইনবোর্ড দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন বিজিবিকে জানায়।

বিজিবি মনতলা সীমান্ত ফাঁড়ির সুবেদার আবু বক্কর জানান, সাইনবোর্ডগুলো কারা খুলে নিয়েছে তা পুরোপুরিভাবে নিশ্চিত নয়। তবে ধারণা করছি, মাদক চোরাকারবারিরাই এগুলো খুলে ফেলেছে।

আরও পড়ুন: সাইনবোর্ডে লেখা ‘মাদক ব্যবসায়ীর বাড়ি’, ‘চোরাকারবারির বাড়ি’

এর আগে গত সোমবার উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামের বলু মিয়া, রাজেন্দ্রপুরের আহাদ মিয়া, সিদ্দিকপুরের কবির মিয়া, রামনগরের ধনু মিয়া, কাউছার মিয়া, জয়নাল মিয়া, রাজু মিয়া ও কমলপুর গ্রামের স্বপন মিয়ার বাড়িতে সাইনবোর্ড টানায় বিজিবি। এসব সাইনবোর্ডের কোনোটিতে লেখা ছিল ‘মাদক ব্যবসায়ীর বাড়ি’আবার কোনোটিতে লেখা ছিল ‘চোরাকারবারির বাড়ি’। লালের উপর সাদা রঙ দিয়ে লেখা সাইনবোর্ডগুলো দূর থেকেই পথচারীদের দৃষ্টি কাড়ে।

আরও পড়ুন: ‘পাচার’—৪৭০ ভরি স্বর্ণ ছিল বুড়োর কাছে, ধরল বিজিবি

এদিকে এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা হয়। তবে বিজিবি-৫৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসএনএম সামীউন্নবী চৌধুরী বলেন, ওই আটজন মাদকসহ সীমান্তে বিভিন্ন চোরকারবারের সঙ্গে জড়িত। তাদের সবার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। অনেক চেষ্টার পরও তাদের অপরাধ কর্মকাণ্ড থেকে দূরে সরানো যাচ্ছে না। সামাজিকভাবে চাপের মুখে থাকলে অপরাধ থেকে সরে আসতে পারে, এই চিন্তা থেকে সাইনবোর্ড টাঙানো হয়। তারা আদালতে আত্মসমর্পণ করলে সাইনবোর্ড খুলে নেওয়া হবে

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm