ফেসবুকে প্রেম নয়, অপহরণের কৌশল—৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ চাইতে গিয়ে প্রেমিক শ্রীঘরে

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সাহেদের সঙ্গে বন্ধুত্ব হয় আকবরশাহ্ থানার বাসিন্দা কলেজপড়ুয়া জ্যোৎস্নার (ছদ্মনাম)। দীর্ঘদিনের সেই বন্ধুত্ব ধীরে ধীরে রূপ নেয় প্রেমে। বিয়ে করতে সাহেদের হাত ধরে ঘর থেকে পালিয়ে যায় জোৎস্না। কিন্তু তখনও জ্যোৎস্না জানত না সাহেদ আসলে প্রেমিক নয়, খলনায়ক! জোৎস্নার ঘর বাধার স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে গেল।

জোৎস্না দেখলেন — বিয়ে নয়, অপহৃত হয়েছেন তিনি। জোৎস্নার মুক্তির জন্য তার পরিবারের কাছে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে অপহরণকারী প্রেমিক সোহেল।

সোমবার (৩০ মে) ভোর রাতে ঢাকার গাবতলীর একটি আবাসিক হোটেল থেকে গ্রেফতার করা হয় সাইদুল ইসলাম সোহেলকে। একইসঙ্গে জোৎস্নাকে উদ্ধার করে আকবরশাহ থানা পুলিশ।

আকবরশাহ্ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জহির হোসেন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, রোববার কলেজে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেওয়ার নামে ঘর থেকে বের হয়ে নিরুদ্দেশ হন জোৎস্না। পরে অপহরণকারী সোহেল জোৎস্নার পরিবারকে ফোনে মেয়ের মুক্তির জন্য পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে। অভিযোগ পাওয়ার পর সোমবার ভোররাতে ঢাকার একটি আবাসিক হোটেল থেকে অপহরকারী সোহেল ও অপহৃত জোৎস্নাকে উদ্ধার করা হয়।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm