‘আওয়ামী লীগের তকমা’ লাগিয়ে রেকর্ড প্রার্থীর ভোটযুদ্ধ—নজর এখন চকবাজারে

নগরে আলোচনার কেন্দ্রে রয়েছে ‘চকবাজার’। ১৬ নম্বর চকবাজার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচন আজ বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর)। আলোচিত এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন রেকর্ডসংখ্যক প্রার্থী। দলীয় প্রার্থী না দেওয়ায় ওয়ার্ডটিতে ভোটযুদ্ধে রয়েছেন ২১ জন। শুধু আওয়ামী লীগের ব্যানারেই প্রার্থী হয়েছেন ২০ জন!

এদিকে নির্বাচনকে নির্বিঘ্ন করতে মোবাইল স্ট্রাইকিং ফোর্সের সঙ্গে মাঠে রয়েছেন পাঁচ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। তাঁরা হলেন— ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রায়হান মেহেবুব, সিনিয়র সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুজন চন্দ্র রায়, সিনিয়র সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুরাইয়া ইয়াসমিন এবং সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তাহমিনা সারমিন।

আরও পড়ুন: ‘জামায়াতের আঁতুড়ঘর’ চকবাজারের আ.লীগকে কাউন্সিলর উপহার দিতে চান দেলোয়ার হোসেন ফরহাদ

এবার ১৬ নম্বর চকবাজার ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে কাউন্সিলর পদে লড়ছেন ২১ জন প্রার্থী। এর মধ্যে ২০ জন প্রার্থী ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী। তবে বিএনপি থেকে প্রার্থী হয়েছেন শুধু একজনই।

সকাল ৮টা থেকে ওয়ার্ডের ১৫ কেন্দ্রে ৮৬ বুথে ইভিএমে ভোট হবে। একটানা ভোট চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

চকবাজারে ওয়ার্ডে মোট ভোটার ৩২ হাজার ৪১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৬ হাজার ২১৬ জন এবং নারী ভোটার ১৫ হাজার ৮২৫ জন।

Thai Food

এদিকে দলের মনোনয়ন না থাকা এবং রেকর্ডসংখ্যক প্রার্থী হওয়ায় নির্বিঘ্ন নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। কেন্দ্র দখলেরও শঙ্কা করছেন একাধিক প্রার্থী। তবে প্রশাসন বলছে, যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি রুখতে তারা প্রস্তুত।

আরও পড়ুন: চকবাজারের ‘অস্ত্রবাজ’ টিটুর হঠাৎ ‘সন্ত্রাসী’ টিনু হওয়ার গল্প

এর আগে গত ১৮ মার্চ চকবাজার ওয়ার্ডে টানা সাতবারের কাউন্সিলর সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু মারা যান। ফলে শূন্য হয়ে যায় চকবাজার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদ। শূন্য সেই পদ পূরণে তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

এক ওয়ার্ডেই ২১ প্রার্থী

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুরু হওয়া নির্বাচনে লড়ছেন ২১ প্রার্থী। তাঁরা হলেন— মো. দেলোয়ার হোসেন ফরহাদ (রেডিও), প্রয়াত কাউন্সিলর সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টুর স্ত্রী মেহেরুন্নিসা খানম (ড্রেসিং টেবিল), কাজী মো. ইমরান (লাটিম), মো. নোমান চৌধুরী (ট্রাক্টর), মো. আবুল কালাম চৌধুরী (সূর্যমুখী ফুল), মো. সেলিম রহমান (ঠেলাগাড়ি), মো. আলী আকবর হোসেন চৌধুরী মিন্টু (কাঁটা চামচ), মো. শাহেদুল আজম (ক্যাপ), মো. নাজিম উদ্দীন (কাঁচি), মো. নুরুল হুদা (ঝুড়ি), মো. সামশের নেওয়াজ (ঘুড়ি), মমতাজ খান (পান পাতা), শওকত ওসমান (এয়ারকন্ডিশনার), মো. রুবেল সিদ্দিকী (করাত), মো. আজিজুর রহমান (হেলমেট), মো. আলাউদ্দীন (টিফিন ক্যারিয়ার), মো. জাবেদ (স্ট্রবেরি), কায়সার আহম্মদ (প্রদীপ), মো. আবদুর রউফ (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট) ও মো. নূর মোস্তাফা টিনু (মিষ্টি কুমড়া)। অপরদিকে বিএনপির একমাত্র প্রার্থী হলেন একেএম সালাউদ্দীন কাউসার লাভু (হেডফোন)।

এএইচ/ডিসি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm