চট্টগ্রামে হিন্দু যুবকদের গরুর মাংস খাইয়ে জেলে যেতে হলো ওদের

বাকলিয়ায় হিন্দু গ্রাহকদের গরুর মাংস খাইয়ে প্রতারণার অভিযোগে জেলে যেতে হয়েছে দুবাই রেস্তোরা অ্যান্ড বিরানী হাউজের ম্যানজারসহ তিনজনকে।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) রাত ৮টার দিকে নতুন চাক্তাই খাঁন মার্কেটে এ ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে ‘মোবাইল কলে’ প্রেমিককে রেখেই র‌্যাম্প মডেল রিয়ার আত্মহত্যা

গ্রেপ্তাররা হলেন-হোটেলের ম্যানেজার মো. মনজুর আহাম্মদ (৪৫), হোটেল বয় মো. করিম (৩৫) ও মো. বাবু (২৭)।

গ্রেপ্তার ম্যানেজার মো. মনজুর আহাম্মদ সাতকানিয়া উপজেলার দুরদুরী এলাকার মোরশেদ আহাম্মদের বাড়ীর মৃত হাজী মোরশেদ আহাম্মদের ছেলে। মো. করিম ও মো. বাবু নোয়াখালী জেলার বাসিন্দা।

এদিকে ঘটনার পর থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী সুমন পাল (৪৫)। মামলার তিনজনকে গ্রেপ্তারের পর আদালতে পাঠানো হলে জামিন নামন্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক।

এ বিষয়ে মামলার বাদী সুমন পাল বলেন, বন্ধু সুপনের জন্মদিনের কেক কেটে দুবাই রেস্তোরা অ্যান্ড বিরানী হাউজে খেতে যায় ১২ জন। এসময় খাবার কী আছে জানতে চাইলে হোটেলের ম্যানেজার মনজুর আহাম্মদ বলেন, গরুর তেহেরি, চিকেন বিরিয়ানি। তখন আমি বললাম সবাইকে মুরগীর বিরিয়ানি দেন। এরপর বয়রা বিরিয়ানি দিলেও খাওয়ার কিছুক্ষণ পর এক বন্ধু বিরিয়ানির মধ্যে ছোট একটি গরুর মাংসের মতো দেখতে পায়। পরে সে বয়ের কাছ থেকে কৌশলে জানতে চায় এগুলো কবেকার মাংস? তখন বয় বলেন, বড় ভাই আজ সকালেই জবাই করা গরুর মাংস, একদম ফ্রেশ।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামের কিশোর গ্যাং—আড্ডা থেকে ভয়ঙ্কর অপরাধ, তুচ্ছ ঘটনায় খুন

এরপর আমরা বুঝতে পারি গরুর তেহেরিতে মুরগির মাংস দিয়ে আমাদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ম্যানেজারের কাছে আমরা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভুলে দিয়েছে তো কি হয়েছে? খেলে খান, না খেলে চলে যান। পরে তিনি সবার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন। বিষয়টি তাৎক্ষণিক বাকলিয়া থানাকে জানালে পুলিশ এসে ম্যানজোরসহ তিনজনকে আটক করে নিয়ে যায়। পরে এ ঘটনায় থানায় মামলা করি।

আলোকিত চট্টগ্রাম

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm