চট্টগ্রামে করোনা: তালিকার প্রথম ও শেষেই সর্বনাশ

চট্টগ্রামে প্রতিদিন করোনা শনাক্ত নিয়ে তালিকা প্রকাশ করে সিভিল সার্জন কার্যালয়। যেখানে থাকে ১২টি ল্যাবের নমুনা পরীক্ষা ও শনাক্তের সংখ্যা। সেই তালিকার প্রথম ও শেষ ল্যাবেই এবার হয়েছে সর্বনাশ!

গত ২৪ ঘণ্টায় মোট নমুনা পরীক্ষায় তুলনায় শনাক্তের হার প্রায় ২০ শতাংশ। কিন্তু ওই দুই ল্যাবে শনাক্তের হার প্রায় ৪০ শতাংশ! তালিকার প্রথম ও শেষে থাকা ওই ল্যাব দুটি হলো- চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ল্যাব ও ইপিক হেলথ কেয়ার।

আরও পড়ুন: করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যা বলছে 

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় দুই হাজার ৩৩৩ নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হন ৪৬৬ জন। অর্থাৎ শনাক্তের হার প্রায় ২০ শতাংশ। চবি ল্যাবে ২১২ নমুনায় শনাক্ত হন ৮৫ জন। শনাক্তের হার ৪০ শতাংশেরও বেশি! অপরদিকে ইপিক হেলথ কেয়ারে ১১৫ নমুনায় শনাক্ত হন ৪৫ জন। শনাক্তের হার ৩৯ শতাংশের বেশি!

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে মারা গেছেন ৫ জন।

শনিবার (১৪ আগস্ট) সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এসব জানা যায়।

বিআইটিআইডি ল্যাবে ৯৩২ নমুনা পরীক্ষায় ৭৭ জন, চমেক ল্যাবে ৩০২ নমুনা পরীক্ষায় ৯৮ জন, সিভাসু ল্যাবে ২৪৫ নমুনা পরীক্ষায় ৭০ জন, ইম্পেরিয়াল ল্যাবে ১৫৭ নমুনা পরীক্ষায় ৩১ জন, শেভরন ল্যাবে ২৪৬ নমুনা পরীক্ষায় ৩৫ জন, মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৬১ নমুনা পরীক্ষায় ১০ জন এবং মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে ২৯ নমুনা পরীক্ষায় ১১ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

এছাড়া ৩৪টি অ্যান্টিজেন টেস্ট করে ৪ জনের করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে।

আরও পড়ুন: করোনা—চট্টগ্রামে ‘ইকোনমিক জোনে’ ৭ দিনে ২ ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু

উপজেলার মধ্যে লোহাগাড়ায় ১ জন, সাতকানিয়ায় ১ জন, বাঁশখালীতে ১ জন, আনোয়ারায় ১১ জন, চন্দনাইশে ৬ জন, পটিয়ায় ২ জন, বোয়ালখালীতে ২২ জন, রাউজানে ৫০ জন, ফটিকছড়িতে ২৩ জন, হাটহাজারীতে ৪১ জন, সীতাকুণ্ডে ৮ জন, মিরসরাইয়ে ২ জন এবং সন্দ্বীপে ১ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

২৪ ঘন্টায় আক্রান্তদের মধ্যে ২৯৭ জন নগরের এবং ১৬৯ জন উপজেলার বাসিন্দা। মারা যাওয়াদের ৩ জন নগরের এবং ২ জন উপজেলার বাসিন্দা।

আলোকিত চট্টগ্রাম
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm