ছুটির দিনেও ছুটছে চসিক

ছুটির দিনেও দুর্বার গতিতে ছুটছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। শুক্রবার (১১ জুন) সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও নগরজুড়ে চলেছে চসিকের পরিচ্ছন্নতা বিভাগের উচ্ছেদ অভিযান। শুধু উচ্ছেদ অভিযান নয়, নগরের বিভিন্ন ওয়ার্ডের খাল ও নালায় জমে থাকা ময়লা-আবর্জনাও পরিষ্কার করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে নগরের ১৬ নম্বর চকবাজার ওয়ার্ডের অলিখাঁ মসজিদ থেকে প্রবর্তক মোড় এবং ৩২ নম্বর আন্দরকিল্লা ওয়ার্ডের শাহী জামে মসজিদের সামনে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। এসময় উচ্ছেদের পাশাপাশি এসব এলাকার বিভিন্ন নালার ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার করা হয়।

অভিযানে রাস্তা ও ফুটপাতের নালা দখল করে গড়ে উঠা বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা ও দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়। জব্দ করা হয় মালামাল।

চসিকের পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মকর্তা, পরিদর্শক, ওয়ার্ড সুপারভাইজার ও অর্ধশত পরিচ্ছন্নকর্মী এ অভিযানে অংশ নেয়।

চসিক জানায়, প্রতিদিনই ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে চলছে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান। শুক্রবার ছুটির দিন হলেও নিয়মিত এ কার্যক্রম চালু রাখা হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৯ জুন) ৩৮ নম্বর দক্ষিণ মধ্যম হালিশহর ওয়ার্ডে অভিযান পরিচালনা করে চসিক। মঙ্গলবার (৭ জুন) নতুন ব্রিজ সংলগ্ন রাস্তা ও ফুটপাত দখল করে থাকা অবৈধ স্থাপনা ও দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়। পাশাপাশি পরিষ্কার করা হয় নালার আবর্জনা।

কে বি ফজলুল কাদের রোডে ফুটপাতে আসা দোকানের বর্ধিত অংশ ভেঙে দেওয়া হচ্ছে

অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের উপ-প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, মাননীয় মেয়রের নির্দেশে নাগরিক দুর্ভোগ লাঘবে এই অভিযান। ফুটপাত ও রাস্তা যে যার মতো দখল করে রেখেছিল। ফলে পথচারীদের হাঁটাচলার জায়গা ছিল না। এখন অবৈধ স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ করা হয়েছে। পাশাপাশি এসব ওয়ার্ডের বিভিন্ন নালা-নর্দমা ও ফুটপাত পরিষ্কার করা হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে এ অভিযান চলবে।

তিনি আরও বলেন, চকবাজার ও আন্দরকিল্লার বিভিন্ন দোকানদার নিজেদের সীমানার মধ্যে না থেকে তাদের ইচ্ছেমত রাস্তা ও ফুটপাত দখল করে নিয়েছে। যার ফলে চলাচলে দুর্ভোগ বাড়ছে। এছাড়া এমন দোকানদারও দেখলাম যারা বেচাবিক্রি, খাওয়া-দাওয়া, ঘুম- সবকিছুই করছে ফুটপাতে। এখন থেকে ফুটপাত ও রাস্তা দখল করে কাউকে ব্যবসা করতে দেওয়া হবে না। যেখানে অনিয়ম চোখে পড়বে সেখানেই অভিযান পরিচালনা করা হবে।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm