৪০ ফুটের সড়কে শতাধিক দোকান—অবৈধ বাণিজ্যের ফাঁদে যানজটের যন্ত্রণা

আনোয়ারা উপজেলার চাতরী ইউনিয়নে রমজানের শুরু থেকে সড়ক-ফুটপাত দখল করে বাজার ও ইফতারের নানা পসরা সাজিয়ে বসেছেন দোকানিরা। এতে ব্যাহত হচ্ছে যানবাহন চলাচল। প্রতিদিন ভয়াবহ যানজট নাকাল হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

এদিকে এসব সমস্যা সমাধানে মাথাব্যথা নেই বাজার কর্তৃপক্ষের- এমনটাই বলছেন স্থানীয়রা।

সরেজমিন দেখা যায়, উপজেলার চাতরী ইউনিয়ন বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের গেইট থেকে সিইউএফএল সড়ক চাতরী কাঁচাবাজার পর্যন্ত প্রায় ৪০ ফুট প্রশন্ত সড়কের উভয় পাশে শতাধিক অবৈধ ভাসমান দোকান। এসব দোকানের কারণে সংকুচিত হয়ে পড়েছে সড়ক। সড়কের উল্টোদিকের ফুটপাতের পুরোটাই অবৈধ দখলে। পথচারীদের ঝুঁকি নিয়ে হাঁটতে হচ্ছে মূল সড়কে। এছাড়াও সড়কে যেখানে-সেখানে গাড়ি পার্কিং করায় যানজট আরও তীব্র আকার ধারণ করছে।

স্থানীয় দোকানিরা জানান, সড়ক ও ফুটপাত দখল করে শতাধিক ভাসমান দোকান রয়েছে এখানে। প্রতিদিন এসব দোকান থেকে গড়ে ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা তোলা হয়। সবমিলিয়ে দিনে ১০ হাজার টাকা চাঁদা ওঠে। চাঁদার এই টাকা বাজার ইজারাদার, স্থানীয় নেতাকর্মী, লাইনম্যান ও সহযোগীরা ভাগবাটোয়ারা করেন।

জানা গেছে, সড়ক ও  ফুটপাত দখলমুক্ত করতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাঝেমধ্যে অভিযান চালানো হলেও এর সুফল পাওয়া যায় না। কারণ নজরদারির অভাবে সকালে উচ্ছেদ হলে বিকালে পুনরায় দখলে চলে যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দক্ষিণ চট্টগ্রামের বাঁশখালী, সাতকানিয়া, চন্দনাইশ, কক্সবাজার জেলার পেকুয়া, চকরিয়ার লাখো মানুষ চট্টগ্রাম শহরে যাতায়াত করে প্রতিদিন। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এই মোড়টিতে প্রতিনিয়ত লেগে থাকে দীর্ঘ যানজট। বিকেল হলে এ যানজট দ্বিগুণ বেড়ে যায়। এ যানজট দুই থেকে তিন কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত হয় । যানজটে আটকে থাকতে হয় জরুরি সেবার পরিবহনগুলোকে।

আরও পড়ুন: আনোয়ারায় শপথ নিলেন ১৩২ ইউপি সদস্য

এদিকে রাস্তার পাশে থাকা ট্রাফিক বক্সের বাইরের চিত্র আরও করুণ। পাশেই ময়লার ড্রেন। পুলিশ বক্সের নিরাপত্তায় নেই ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা।

জানতে চাইলে আনোয়ারা ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ হাফিজুর রহমান আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, চাতরী চৌমুহনী বাজারে সড়ক ও ফুটপাত দখলে রেখে যারা ব্যবসা বাণিজ্য করে যানজট সৃষ্টি করেছে তাদের বিরুদ্ধে শিগগির অভিযান পরিচালনা করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. তানভীর হাসান চৌধুরী জানান, ইতোমধ্যে অনেকেই এ বিষয়ে অভিযোগ করেছেন। শিগগির অভিযান চালিয়ে সড়ক ও ফুটপাত অবৈধ দখলমুক্ত করা হবে।

যোগাযোগ করা হলে আনোয়ারা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা শেখ জোবায়ের আহমেদ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, সড়ক ও ফুটপাত দখল করে যারা অবৈধভাবে দোকানপাট গড়ে তুলেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শিগগির উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হবে।

ইমরান/আরবি

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm