‘মাদকবাণিজ্য’—১৪ হাজার ইয়াবাসহ বাকলিয়া থানার পুলিশ ধরা পড়ল দাউদকান্দিতে

চট্টগ্রাম থেকে ইয়াবা নিয়ে ঢাকা যাওয়ার পথে আজমীর হোসেন (৩৫) নামের এক পুলিশ কনস্টেবলকে কুমিল্লায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সোমবার (১৫ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার দাউদকান্দি টোল প্লাজার সামনে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে। এসময় তার কাছে ১৪ হাজার পিস ইয়াবা পাওয়া যায়।

জানা গেছে, গ্রেপ্তার কনস্টেবল চট্টগ্রাম নগরের বাকলিয়া থানার বলিরহাট পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। গ্রেপ্তারের পর তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ছাদে পড়ে ছিল যুবকের লাশ, পকেটে ছিল ৫টি ইয়াবা ও ৫০০ টাকা

গ্রেপ্তার আজমীর হোসেন বাগেরহাট জেলার চিতলমারি উপজেলার কালিগাতী গ্রামের মুন্সী নুরুল ইসলামের ছেলে।

Thai Food

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম থেকে নম্বরবিহীন একটি মোটরসাইকেল চালিয়ে আজমীর ঢাকা যাচ্ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দাউদকান্দি টোল প্লাজার সামনে মোটরসাইকেলের গতিরোধ করা হয়। পরে কাঁধে থাকা একটি ব্যাগ তল্লাশি করে ১৪ হাজার পিস ইয়াবা পাওয়া যায়।

জিজ্ঞাসাবাদে আজমীর জানান, চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার বাসিন্দা ইয়াবা বিক্রেতা শাহ আলমের কাছ থেকে ইয়াবাগুলো সংগ্রহ করে ঢাকায় এক মাদক বিক্রেতার কাছে যাচ্ছিলেন।

এদিকে আজমীরের বিরুদ্ধে কুমিল্লা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) পরিমল চন্দ্র দাশ বাদী হয়ে দাউদকান্দি থানায় মামলা করেছেন। মামলায় শাহ আলমকেও আসামি করা হয়েছে। পরে আজমীরকে আদালতে তোলা হয়।

যোগাযোগ করা হলে বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাশেদুল হক বলেন, আজমীর হোসেন বলিরহাট পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। গত সোমবার তিনি ভোর ৬টা পর্যন্ত ডিউটিতে ছিলেন। পরে আট ঘণ্টার বিশ্রামে যান। ওইদিন বিকেলে আজমীরকে গ্রেপ্তারের খবর জানতে পারি।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm