‘১০ যুবকের কাণ্ড’ চলন্ত বাসে তরুণীকে একের পর এক ধর্ষণ

মিরসাইয়ে চলন্ত বাসে এক পোশাককর্মীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। একই দিনে তিনবার ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ওই পোশাক শ্রমিক ।

গত ২৩ জুন সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এসব ঘটনা ঘটে।

এদিকে এ ঘটনায় শুক্রবার (২৫ জুন) রাত ১০টা পর্যন্ত ৬ জনকে আটক করেছে মিরসরাই থানা পুলিশ । ধর্ষণের সাথে জড়িত আরও কয়েকজনকে আটকের চেষ্টা চলছে।

আটকরা হলেন-সীতাকুণ্ড উপজেলার মাহমুদাবাদ এলাকার মো. দুলালের ছেলে আশরাফুল ইসলাম (২৩), বাঁশবাড়িয়া এলাকার মো. ইয়াছিনের ছেলে শাহাদাৎ হোসেন (১৮), মুরাদপুর এলাকার মোজাম্মেল হোসেনের ছেলে রায়হান উদ্দিন রানা (২০), উত্তর ইদিলপুর এলাকার মো. নুর নবীর ছেলে মো. বেলাল হোসেন (২৩), শিবপুর এলাকার মো. সালামত উল্লাহর ছেলে মো. ইসমাঈল (৩২), মিরসরাই উপজেলার মধ্যম কুরুয়া এলাকার মো. জেবল হোসেনের ছেলে মো. সাগর (২২)।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. কামাল হোসেন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, গত ২৩ জুন বুধবার সন্ধ্যায় পোশাককর্মী চন্দা (ছদ্মনাম) (২২) কে তার পরিচিত সীতাকুণ্ডের চাকা পরিবহনের বাসচালক আশরাফুল ইসলাম (২৩) প্রকাশ আল আমিন নগরের অলংকার আসার জন্য বলেন। সেখান থেকে চন্দাকে আল আমিন বাসে করে সীতাকুণ্ড নিয়ে আসেন। এ সময় সীতাকুণ্ডে বাস থেকে সব যাত্রী নামিয়ে দিলেও চন্দাকে তারা নামতে দেয়নি। পরে চালক আল আমিন ও হেলপার শাহাদাৎ সীতাকুণ্ডের জুটমিল এলাকায় নিয়ে বাসে ধর্ষণ করে। এরপর তারা চন্দাকে জুটমিল এলাকায় রেখে চলে যায়।

পরে চন্দ্রা তার পূর্ব পরিচিত রায়হান উদ্দিন রানাকে ফোন করে ঘটনার বিস্তারিত জানায়। রানা তাকে সীতাকুণ্ড আসার জন্য বলে। চন্দা সীতাকুণ্ড আসার জন্য আরেকটি বাসে উঠলে ওই বাসের চালক ইসমাইল ও তার সহকারী (অজ্ঞাত) মিলে রাত সাড়ে ১১টায় বাসে আবারও তাকে ধর্ষণ করে সীতাকুণ্ড ফেলে চলে যায়।

ঘটনার পর রায়হান উদ্দিন রানা সীতাকুণ্ড এসে চন্দার সাথে দেখা করে তার বন্ধু সাগর ও বেলালসহ তাকে সীতাকুণ্ড থেকে বৃহস্পতিবার রাত ৪টায় মিরসরাইয়ের সাহেরখালী এলাকার বেঁড়িবাধে নিয়ে গিয়ে পুনরায় ধর্ষণ করেন সাগর, বেলালসহ আরো কয়েকজন মিলে। পরবর্তী রানা ও তার সহপাঠিরা চন্দার কাছে থাকা নগদ ২ হাজার টাকা ও মোবাইল সেট নিয়ে পালিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার সকালে চন্দা বেঁড়িবাধ এলাকা থেকে মিরসরাইয়ের নিজামপুর এলাকায় আসে।

দুপুরে সীতাকুণ্ড থানায় এসে এসব ঘটনায় লিখিত অভিযোগ করেন চন্দা। সর্বশেষ ঘটনা মিরসরাই থানা এলাকায় হওয়ায় সীতাকুণ্ড থানা অভিযোগটি মিরসরাই থানায় হস্তান্তর করে।

শুক্রবার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত ৬ জনকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ধর্ষণের সত্যতা স্বীকার করেন বলে জানায় পুলিশ।

আজিজ/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm