হঠাৎ ‘ভয়ঙ্কর’ হয়ে উঠছে হাটহাজারী, অপরাধ বাড়লেও পুলিশ যেন ‘কুম্ভকর্ণ’

হাটহাজারীতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ভয়াবহ অবনতি হয়েছে। বেড়েছে খুন, ধর্ষণ, চুরি, ছিনতাইসহ ‘ভয়ঙ্কর’ সব অপরাধ। এভাবে অপরাধ বাড়লেও থানা-পুলিশের কুম্ভকর্ণের ঘুম ভাঙছে না।

দেড় মাসের ব্যবধানে মধ্যযুগীয় কায়দায় দুজনকে পিটিয়ে হত্যার বিষয়টিও এখানে আলোচিত। এছাড়া যৗেতুকের দাবিতে দুই গৃহবধূকে খুন এবং শিশু ধর্ষণের ঘটনাও ঘটেছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর যথাযথ নজরদারির অভাবেই হাটহাজারীতে প্রতিনিয়ত বাড়ছে অপরাধ।

জানা গেছে, উপজেলার নতুপাড়া বিআরটিসি বাস ইজারা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি রাতে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হন চিকনদন্ডী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ খন্দকিয়া এলাকার রুবেল (৩৫)। ঘটনার একদিন পর তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় ২৮ ফেব্রুয়ারি নিহতের মা বাদি হয়ে হাটহাজারী থানায় মামলা করেন। এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তবে ঘটনার দেড় মাস পেরিয়ে গেলও খুনের নেতৃত্ব দেওয়া সন্ত্রাসী দিদারসহ বাকিরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে।

আরও পড়ুন: শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে র‌্যাগ ডে : ৩০ দিনের মধ্যে বন্ধের নির্দেশ

যোগাযোগ করা হলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর অপারেশন মো. আমিনুল ইসলাম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, রুবেল হত্যায় দুজন আটক ছাড়া আর কোনো আপডেট নেই।

এদিকে গত ২৫ মার্চ পারিবারিক কলহের জেরে উপজেলার বুড়িশ্চর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড ফোজদার আলী ফকিরের হাট এলাকায় জান্নাতুল ফেরদৌস (৩২) নামে এক গৃহবধূকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন স্বামী সাইদ শফি।

পরদিন ২৬ মার্চ চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি মহাসড়কের পাশে পৌরসভা এলাকার এক ইট ব্যবসায়ীর ঘরে দুধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এসময় ৪৫ ভরি স্বর্ণালংকার-ডায়মন্ডসহ ২৫ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায় ডাকাত দল। এ ঘটনায় ৩ ডাকাতকে আটক করা হলেও বাকিরা এখনো আটক হয়নি। এছাড়া কোনো মালামালও উদ্ধার হয়নি।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মুকিব আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, এতদিন আগের ঘটনা সবকিছু মনে নেই। ডাকাতির মামলায় তিনজন আটক ও কোনো মালামাল উদ্ধার নেই। এর চেয়ে বেশি জানি না।

এদিকে আমান বাজার জয়নব কমিউনিটি সেন্টারের পশ্চিমে নাজিম কলোনিতে ৬ এপ্রিল রাতে আইপিএল নিয়ে জুয়া খেলার টাকা ভাগাভাগি নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে পিটিয়ে হত্যা করা হয় ফারুক (৩৫) নামে একজনকে। ঘটনার সূত্রপাত জুয়া খেলার টাকা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে ফয়সাল নামে একজনের সঙ্গে সংঘর্ষের মাধ্যমে। এ ঘটনায় মইনুদ্দিন চিশতি নামে একজনকে তাৎক্ষণিক আটক করা হলেও বাকিরা এখনো পলাতক।

আরও পড়ুন: ঘুমের ওষুধ খাইয়ে দুবোনকে ধর্ষণ—সেই যুবক ধরা খেল গাজীপুরে

এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই জাহাঙ্গীর আলম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ফারুক হত্যা মামলায় মইনউদ্দিন চিশতি নামে একজন আটক আছে। তবে এ বিষয়ে নতুন কর্মকর্তা বিস্তারিত বলতে পারবেন।

এছাড়া ৮ এপ্রিল উপজেলার ফরহাদাবাদ ইউনিয়ন এলাকায় ইফতারি ও যৌতুকের দাবিতে আয়েশা আক্তারকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এ ঘটনায় নিহতের ভাই আবুল ফয়েজ বাদি হয়ে চট্টগ্রাম চীফ জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। যদিও এটিকে আত্মহত্যা বলেছিল আয়েশার শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রফিক আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, আয়েশা হত্যার মামলায় তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দেওয়া হবে।

গত ১২ এপ্রিল ঘরে একা পেয়ে চাচাত দাদা জাহাঙ্গীর দ্বিতীয় শ্রেণির এক শিশুকে ধর্ষণ করেন। পরদিন তাকে আটক করে র‌্যাব।

আরও পড়ুন: উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রাতের অভিযানে ৫ ডাকাত আটক

এদিকে উপজেলার বাস স্টেশন, পৌরসভা, মির্জাপুর, চারিয়া, আমান বাজার, নতুনপাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রতিনিয়ত চুরি, ছিনতাই ও মলম পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারাচ্ছে মানুষ। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নজরদারি না বাড়ালে আগামীতে এমন ঘটনা আরো বাড়তে পারে বলে স্থানীয়রা শঙ্কাপ্রকাশ করেছেন। তাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বাড়িয়ে উপজেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণের দাবি জানিয়েছেন তারা।

সার্বিক বিষয়ে জানতে চাইলে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহিদুল আলম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি নিয়ে আমারা গত মাসে আইনশৃঙ্খলা কমিটির মিটিংয়ে আলোচনা করেছি। এ মাসের মিটিংয়ে আরো জোরদারভাবে বলব। এ বিষয়ে আমি ওসির সঙ্গেও কথা বলেছি। দেড় মাসের ব্যবধানে ঘটে যাওয়া হত্যাকণ্ডগুলো সবাইকে ভাবিয়ে তুলছে। এ বিষয়ে আমাকে আরো অনেকেই অভিযোগ জানিয়েছেন।

এসআই/আলোকিত চট্টগ্রাম

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm