বাটির ভেতর দেড় কোটি টাকার স্বর্ণ লুকিয়ে রেখেছিল মা—ছেলে

দেড় কোটি টাকা মূল্যের ৮টি স্বর্ণের বারসহ রোহিঙ্গা নাগরিক মা-ছেলেকে আটক করা করেছে র্যাব-৭।

শনিবার (৩০ জুলাই) সকালে সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুর ১০ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা থেকে তাদের গোপন সংবাদে আটক করা হয়। র্যাব-৭ এর চান্দগাঁও ক্যাম্পে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন লেফটেনেন্ট কর্ণেল এম এ ইউসুফ।

আটকরা হলেন- জঙ্গল সলিমপুর এলাকার মৃত মোজাহের আহমেদের ছেলে আসমত উল্লাহ (২৪) ও তার মা ছহুরা খাতুন (৬৮)।

আরও পড়ুন: কোটি টাকার স্বর্ণ বিমানে লুকিয়ে রেখে ধরা খেল শাহ আমানতে

সংবাদ সম্মেলনে লেফটেনেন্ট কর্ণেল এমএ ইউসুফ বলেন, রোহিঙ্গারা মাদক (ইয়াবা) বিক্রির টাকায় সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে স্বর্ণের বার উখিয়া-টেকনাফ ক্যাম্প থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচার করছে। এমন সংবাদের পর শনিবার সকাল ১০টায় সীতাকুণ্ড থানার জঙ্গল সলিমপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় আটক মা-ছেলের বসতঘরের সানসেডের একটি বাটির ভেতর ৮টি স্বর্ণের বার, ৫টি স্বর্ণের চেইন, ১ জোড়া বালা, ৩ জোড়া কানের দুল, ৩টি আংটি ও ৪টি লকেট উদ্ধার করে হয়। তিনি বলেন, ৮টি স্বর্ণের বারের আনুমানিক মূল্য প্রায় এক কোটি টাকা এবং উদ্ধার করা স্বর্ণালংকারের আনুমানিক মূল্য প্রায় ৫০ লাখ টাকা। উদ্ধার সব স্বর্ণের মূল্য ১ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।

Yakub Group

তিনি আরও বলেন, আটক মা-ছেলে ২০১২ সালে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। এরপর মাকে কক্সবাজার জেলার ঈদগাহ এলাকায় রেখে ২০১৪ সালে এজেন্সি ও এলাকার চাচা আব্দুস সালামের মাধ্যমে পাসপোর্ট করে সৌদি আরবে চলে যান ছেলে। ২০২০ সালের আগস্টে প্রবাস থেকে ফিরে স্ত্রী-মাসহ জঙ্গল সলিমপুর এলাকায় বসবাস শুরু করেন একই বছরের ডিসেম্বরে। আটক আসামি এবং উদ্ধার করা স্বর্ণসহ সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান লেফটেনেন্ট কর্ণেল এমএ ইউসুফ।

আরএস/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm