সাগরিকার সুখ নিতে পারল না অসংখ্য টাইগার-ভক্ত

কারো মাথায় বাঘের টুপি, কারো গায়ে লাল-সবুজ জার্সি। কেউ পতাকা হাতে, কেউ বা মুখে টাইগার এঁকে এসেছেন সাগরিকা জহুর আহম্মেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের পথে।

দীর্ঘ ৭ বছর পর ভারত-বাংলাদেশ সিরিজ, তাই বাধভাঙা উচ্ছ্বাসে মেতেছেন টাইগার ভক্তরা। এর আগে ঢাকায় অনুষ্ঠিত দুম্যাচ জেতায় ইতোমধ্যে টাইগারদের সিরিজ জয় নিশ্চিত হয়েছে। চট্টগ্রামের মাটিতে তৃতীয় ম্যাচ জিতে প্রথমবারের মতো ভারতকে বাংলাওয়াশ করতে মরিয়া টাইগার বাহিনী।

দীর্ঘদিন পর চট্টগ্রামে ফিরেছে ওয়ানডে ম্যাচ, প্রতিপক্ষ ভারত; তাই মাঠ থেকেই খেলা দেখতে এসেছেন অনেক ক্রিজেটপ্রেমী।

করোনা কাটিয়ে ফের প্রাণ ফিরেছে চট্টগ্রামের জহুর আহম্মেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। কানায় কানায় পূর্ণ স্টেডিয়ামের পুরো গ্যালারি। চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত একমাত্র ওয়ানডের টিকিট পেতে অবশ্য বেশ বেগ পেতে হয়েছে দর্শকদের৷

সাগরিকার বিটেক মোরে টিকিট পেতে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে ছিল হাজারো ক্রিকেট ভক্ত। টিকিট না পেয়ে অনেকে হতাশও হয়েছেন।

Yakub Group

বন্ধুদের সঙ্গে সীতাকুণ্ড থেকে এসেছেন টাইগার-ভক্ত ইলিয়াস। তিনি বলেন, বাংলাদেশের খেলা আগেও দেখেছি। তবে এবার অন্যরকম উত্তেজনা কাজ করছে৷ আমি ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়েছিলাম। আমরা ৫ জন এসেছি, আরো দুটো টিকিট দরকার।

এদিকে টিকিট না পেয়ে হতাশ সাতকানিয়া থেকে আসা হামিদ। হতাশা হামিদ বলেন, আমি সাতকানিয়া থেকে এসেছি। অনেক ইচ্ছে ছিল ম্যাচটা দেখার, কিন্তু কোনোভাবেই টিকিট পাচ্ছি না।

সরেজমিন দেখা যায়, এ ম্যাচের টিকিট নিয়ে হাহাকার। ২০০ টাকার টিকিট ব্ল্যাকে বিক্রি করতে দেখা গেল ৫শ থেকে হাজার টাকায়।

এর আগে ২০১৫ সালে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে এসেছিল ভারত। সেবার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-১-এ জিতে নেয় স্বাগতিক বাংলাদেশ। সাত বছর পর ফের সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। এবার বাংলাওয়াশ করে রূপকথার গল্প লিখতে চায় টাইগার বাহিনী।

এসআই/আলোকিত চট্টগ্রাম

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm