সম্পদের হিসাব না দিয়ে জেলে যেতে হবে হেফাজতের আমির মুফতি ইজহারকে

হেফাজতে ইসলামের সাবেক সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি ইজাহারুল ইসলাম চৌধুরীকে ২ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সম্পদ বিবরণী জমা না দেওয়ার অভিযোগে মামলাটি করেছিল দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোববার (২০ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ মুন্সী আবদুল মজিদের আদালত এই রায় দেন।

মুফতি ইজাহারুল ইসলাম চৌধুরী বাঁশখালীর বৈলছড়ি এলাকার মৃত কাজী আজিম আহমদ চৌধুরীর ছেলে। তিনি নগরের খুলশী থানাধীন লালখানবাজার আল জামেয়াতুল ইসলামিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ।

আরও পড়ুন: প্রতারণার টাকায় আবিরের বিলাসী জীবন

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৭ জুন সম্পদের হিসাব চেয়ে মুফতি ইজাহারুল ইসলামকে নোটিশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। ২৮ জুলাই মুফতি ইজাহারুল ইসলাম বরাবরে নোটিশ পাঠানো হয়।

এতে সাত কার্যদিবসের মধ্যে সম্পদ বিবরণী দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু সাত কার্যদিবস অর্থাৎ ৭ আগস্টের মধ্যে সম্পদের হিসাব না দেওয়ায় দুদক চট্টগ্রামের উপসহকারী পরিচালক সিরাজুল হক বাদি হয়ে ওই বছরের ১৭ সেপ্টেম্বর মুফতি ইজাহারুলের বিরুদ্ধে খুলশী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

২০১৪ সালের ২১ এপ্রিল দুদক এ মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করে। একই বছর ২৮ এপ্রিল অভিযোগপত্র গ্রহণ করে ১২ মে আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো.মূসা বলেন, মুফতি ইজাহারুলকে দুদক আইন ২০০৪ এর ২৬ (২) ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ২ মাস বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ মামলায় ৭ জন আদালতে সাক্ষ্য প্রদান করেছেন।

এসআই/আলোকিত চট্টগ্রাম
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm