সন্ধ্যা নামতেই প্রবাসীর ঘরে হানা, নিয়ে গেল ২৫ ভরি স্বর্ণসহ নগদ টাকা

চকরিয়ায় প্রবাসীর বাড়ির দরজার তালা ও আলমারি ভেঙে ২৫ ভরি স্বর্ণালংকার এবং নগদ ১ লাখ ৫৫ হাজার টাকা নিয়ে গেছে চোরের দল।

সোমবার (২৮ মার্চ) সন্ধ্যা ৭টার দিকে চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মাইজঘোনা এলাকার প্রবাসী জয়নাল আবেদীন বাবুলের বাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটে।

এদিকে চুরির ঘটনায় প্রবাসীর স্ত্রী ফোরকান আরা বেগম বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। পরে আজ (মঙ্গলবার) সকালে চকরিয়া থানায় এজাহারটি মামলা হিসেবে রুজু করা হয়।

আরও পড়ুন: টার্গেট প্রবাসীরাই—খুন করে লুট, ওঁৎ পেতে থাকে অপরাধী চক্র

মামলার আসামিরা হলেন- চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মাইজঘোনা এলাকার মো. ফরিদ আলমের ছেলে মো. মিরাজ উদ্দিন (৩০), একই এলাকার মনুর আলমের ছেলে ফয়সাল আহমদ (২৪) ও একই এলাকার আবুল বশরের ছেলে মো. জিশান (২৩)। এছাড়া আরও ৫-৬ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

মামলার বাদি ফোরকান আরা বেগম বলেন, কয়েকদিন আগে আমার দুই মেয়ে বাপের বাড়ি বেড়াতে আসেন। সোমবার বিকালের দিকে আমিসহ আমার তিন মেয়ে দরজায় তালা লাগিয়ে চকরিয়া পৌরশহরে শপিং করতে যায়। রাত ৭টার দিকে বাড়ি ফিরে দেখি দেয়াল টপকিয়ে মিরাজ, ফয়সাল, জিশানসহ আরও ৫-৬ জন যুবক বের হয়ে চলে যাচ্ছে। এসময় আমরা চিৎকার শুরু করলে তারা দ্রুত পালিয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, বাড়িতে ঢুকে দেখি দরজার তালা ভাঙা। ঘরে আলমারিতে রাখা দুই মেয়ের অন্তত ২৫ ভরি স্বর্ণালংকার এবং নগদ ১ লাখ ৫৫ হাজার টাকা নেই। ঘটনাটি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে জানিয়েছি। এরপর চকরিয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছি।

আরও পড়ুন: প্রবাসীর স্ত্রীকে জাল সনদ তৈরি করে দিয়ে ফেঁসে গেল যুবক

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে একদল চোর পরিকল্পিতভাবে এই চুরির ঘটান ঘটিয়েছে। একজন এস আইয়ের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

তিনি আরও বলেন, চুরির ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তার ও চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধারে অভিযান চলছে।

মুকুল/আরবি

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm