সংঘর্ষ–গোলাগুলি, শেষ পর্যন্ত জামায়াতের কাছে ধরাশায়ী ‘নৌকা’

ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং গোলাগুলির মধ্যদিয়ে কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার স্থগিত কেন্দ্র বারবাকিয়া ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে জামায়াতের কাছে ধারাশায়ী হয়েছে আওয়ামী লীগ।

প্রশাসনে পক্ষাপাতিত্বের অভিযোগ এনে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী জিএম আবুল কাশেম। শেষ পর্যন্ত ভোটের হিসাব-নিকাশ শেষে জয়ী হন জামায়াত সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী চশমা প্রতীকের মাওলানা বদিউল আলম।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হয়।

আরও পড়ুন : ইউপি নির্বাচন—রাঙ্গুনিয়া চকরিয়া পেকুয়ায় `বিদ্রোহীদের’ চমক

এ কেন্দ্রের ১ হাজার ৩৩৫ জন ভোটারের মধ্যে ৯৪৯ জন নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এদিন সকাল ১০টা থেকে নৌকার সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে দুই পুলিশ সদস্যসহ ৮-১০ জন আহত হন। পুলিশের ওপর হামলা এবং বিশৃঙ্খলার দায়ে সাতজনকে আটক করে পুলিশ।

সব কেন্দ্রের ফলাফলের হিসেবে জামায়াত সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মাওলানা বদিউল আলম পেয়েছেন ৪ হাজার ৭৮৮ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী জিএম আবুল কাশেম পেয়েছেন ৪ হাজার ৬১৮ ভোট।

এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১২ হাজার ৮৪৪। ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন ৯ হাজার ৯৯৮ জন। বাতিল হয়েছে ৫২৯ ভোট।

গত ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপের এ নির্বাচনের অপর আট কেন্দ্রে জিএম আবুল কাশেম ৩১৪ ভোটে এগিয়ে ছিলেন।

আরও পড়ুন : ফেসবুকে পোস্ট দেওয়াকে কেন্দ্র করে আনোয়ারা রণক্ষেত্র, নির্বাচনি সংঘর্ষে রক্তাক্ত ১১

ফাঁসিয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা আনোয়ারুল আমিন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, এ কেন্দ্রে ১ হাজার ৩৩৫ জন ভোটার রয়েছে। এরমধ্যে বৈধ হয়েছে ৮৬৮ ভোট। যার ১৯৬টি পেয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জিএম আবুল কাশেম। চশমা প্রতীকের জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী বদিউল আলম পেয়েছেন ৬৭০ ভোট। অন্য এক প্রার্থী ২টি ভোট পেয়েছেন।
নির্বাচন তদারকির মূল দায়িত্বে থাকা সহকারী পুলিশ সুপার (চকরিয়া সার্কেল) তফিকুল আলম বলেন, ভোটকেন্দ্রে আক্রমণের চেষ্টা করা হলে পুলিশের সঙ্গে বিশৃঙ্খলাকারীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ ৮-১০ রাউন্ড ফাকা গুলিবর্ষণ করে। বিশৃঙ্খলাকারীদের হামলায় পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় সাতজনকে আটক করা হয়েছে।

বারবাকিয়া ও রাজাখালী কেন্দ্রের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. ছালামত উল্লাহ বলেন, জামায়াত সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মাওলানা বদিউল আলম ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৭৮৮টি। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী জিএম আবুল কাশেম ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৬১৮ ভোট। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১২ হাজার ৮৪৪ জন। এরমধ্যে ৯ হাজার ৯৯৮ জন তাদের ভোট প্রয়োগ করেছে। বাতিল হয়েছে ৫২৯ ভোট।

উল্লেখ্য, গত ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের অভিযোগে ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ফাঁসিয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়।

মুকুল/ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm