রক্ত দিয়ে ঋণ শোধ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২তম জন্মবার্ষিকী আজ (১৭ মার্চ)।

১৯২০ সালের ১৭ মার্চ ছিল বাঙালির এক শুভক্ষণ। কারণ সেদিন জন্ম নেওয়া খোকা, শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের যে দিয়েছিলেলেন একটি স্বাধীন রাষ্ট্র! তাইতো ২০০৪ সালে বিবিসির বিশেষ এক জরিপে তিনি নির্বাচিত হয়েছিলেন সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি হিসেবে।

বঙ্গবন্ধু স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছেন স্বপ্ন দিয়ে, ত্যাগ স্বীকার করে। জেল-জুলুম সহ্য করেছেন, কিন্তু লক্ষ্য থেকে কখনো সরে যাননি। জীবনের বহু বছর তিনি কাটিয়েছেন কারাগারে।

আরও পড়ুন: বঙ্গবন্ধুর ছন্দময় ভাষণ ছিল প্রাণস্পর্শী

বেশ কয়েকবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। আগরতলা মামলায় ক্যান্টনমেন্টে বন্দী থাকার সময় তাকে পেছন থেকে গুলি করে মারার ষড়যন্ত্র হয়েছিল। খবর পেয়ে তিনি সাবধান হয়ে যান। সার্জেন্ট জহুরুল হক সেই বন্দীশালায় শহীদ হন।

আগরতলা মামলায় বঙ্গবন্ধুকে ফাঁসিতে ঝোলানোর পরিকল্পনা করেছিলেন পাকিস্তানের সামরিক শাসক আইয়ুব খান। কিন্তু বাংলার মানুষ উনসত্তরের বীরোচিত গণ–আন্দোলন গড়ে তুলে তাকে মুক্ত করে আনে। ভালোবেসে উপাধি দেয় ‘বঙ্গবন্ধু’।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রাম আদালত ভবনে ১২ ফুটের বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল 

রক্ত দিয়ে মানুষের ভালোবাসার ঋণ শোধ করেছেন বঙ্গবন্ধু। কিন্তু তার কাছে বাঙালির যে ঋণ, তা শোধ হবে কী করে? আজ (১৭ মার্চ) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২তম জন্মবার্ষিকী। বাঙালি তাকে ন্মরণ করছে শ্রদ্ধায়, কৃতজ্ঞতায়— কিছুটা হলেও যদি ঋণ শোধ করা যায়!

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm