শিশু ছাত্রীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করল প্রধান শিক্ষক

কর্ণফুলী উপজেলার উত্তর চরলক্ষ্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী তানজিনা আক্তারকে (১০) বেতের আঘাতে আহত করার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক অনুপ দাশের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর আহত শিক্ষার্থীকে ইভা মেডিকেল হলে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

শিশুর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চরলক্ষ্যা গ্রামের শেখ আহম্মেদের মেয়ে তানজিনা আক্তার প্রতিদিনের মতো স্কুলের টিফিন খাওয়ার সময় তৃতীয় তলা থেকে অসাবধানবশত একটা প্লাস্টিকের পানির বোতল নিচে পড়ে যায়। এ ঘটনার পর প্রধান শিক্ষক এসে ওই শিক্ষার্থীর দুহাত ধরে বেত দিয়ে আঘাত করেন। এসময় তার হাত ও পা ফুলে যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চরলক্ষ্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহসভাপতি মো. ইকবাল খোরশেদ বলেন, আমি প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে কথা বলেছি। দুপুরে তিনতলা থেকে অসাবধানবশত শিশুটি একটি প্লাস্টিকের বোতল ফেলে দেয়। যা নিচে এসে প্রধান শিক্ষকের মাথায় পড়ে। এতে উনি রাগান্বিত হয়ে হয়ত মারধর করেছেন। তবে এটি উচিত হয়নি। বিষয়টি আমরা কালকে স্কুলে বসে সমাধানের চেষ্টা করব। আর ওই শিক্ষার্থীকে আমার ফার্মেসি থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি।

একই স্কুলের আরেক অভিভাবক সদস্য মো. আব্দুল খলিল জানান, এ ঘটনার আগেও প্রধান শিক্ষক অনুপ দাশ আবিদ হোসেন নামের এক শিক্ষার্থীকে মারধর করেন।

এসব বিষয়ে জানতে স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি নাজিম উদ্দিন হায়দারকে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

Yakub Group

এদিকে আহত শিশুর মা মরিয়ম বেগম অভিযোগ করেন, আমার মেয়ের হাত-পা ফুলে লাল হয়ে গেছে। মারধরে কারণে সে স্কুলে প্রস্রাব করে দেয়। আমি পরের বাসায় কাজ করি। ওখান থেকে এসে দেখি মেয়ের খুব খারাপ অবস্থা। সে কান্নাকাটি করে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। পরে আমি ফার্মেসিতে নিয়ে যাই। আমি অভিযুক্ত শিক্ষকের শাস্তি চাই।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক অনুপ দাশ অস্বীকার করে বলেন, ‘এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। পারলে আমার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলেন। এ কথা বলে ফোনের সংযোগ কেটে দেন তিনি।

যোগাযোগ করা হলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মহিউদ্দিন মুহাম্মদ আলমগীর বলেন, আমি কয়েকদিন ধরে অসু্স্থ। তবে ঘটনাটি দুঃখজনক। এ বিষয়ে আমি খবর নিচ্ছি এবং প্রয়োজনে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যোগাযোগ করা হলে কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো দুলাল মাহমুদ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনা নিয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

জেজে/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm