শিক্ষা কর্তার বাড়িতে ‘অসামাজিক’ কাজ, ৭ নারী-পুরুষকে ধরল জনতা—ছাড়ল পুলিশ

মিরসরাইয়ে এক শিক্ষা কর্মকর্তার বাড়ি থেকে ‘অসামাজিক’ কাজে জড়িত ২ মহিলা ও ৫ পুরুষকে হাতেনাতে আটকের পর মিরসরাই থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয় এলাকাবাসী। পরে পুলিশ অভিযুক্তদের থানায় নিয়ে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে স্থানীয়দের মাঝে।

শনিবার (১৪ আগস্ট) পৌরসভার ২নম্বর ওয়ার্ড ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পূর্ব পাশে (গ্রামীণ ব্যাংক সংলগ্ন) মিরসরাই উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম রহমান চৌধুরীর বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় বাড়িতে বসে তারা মাদক সেবনসহ ‘অসামাজিক’ কাজে লিপ্ত ছিল।

আরও পড়ুন: সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামিসহ মিরসরাইয়ে গ্রেপ্তার ৫

এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা হাসান জানান, বাড়িটিতে বেশ কিছুদিন যাবত অসামাজিক কাজ ও মাদকসেবীদের যাতায়াত বেড়ে যাওয়ায় সকলের নজরে আসে। এ ব্যাপারে প্রশাসনের কাছে বারবার অভিযোগ করেও প্রতিকার মিলেনি।

এদিকে খবর পেয়ে মিরসরাই থানা পুলিশের এসআই নেছার উদ্দিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আটকদের থানায় নিয়ে আসেন এবং প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে পরিবারের জিম্মায় তাদের সকলকে ছেড়ে দেয়।

আরও পড়ুন: মিরসরাইয়ে বিষপানে কিশোরের আত্মহত্যা

এ বিষয়ে মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুজিবুর রহমান জানান, স্থানীয় এলাকাবাসী ২ জন নারী ও ৫ জন যুবককে ধরে থানায় খবর দেয়। বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাদের থানায় নিয়ে আসা হয়। তবে বাড়ির মালিক গোলাম রহমান ফেনীতে অবস্থান করায় ভাড়াটিয়াদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায়নি । এজন্য অভিযুক্তদের পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বাড়ির মালিক মিরসরাই উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম রহমান চৌধুরী জানান, ঘটনার বিষয়ে তিনি অবগত হয়েছেন এবং থানা পুলিশের সাথে এ বিষেয়ে যোগাযোগ হয়েছে।

আজিজ/আরবি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm