পালিয়ে যাওয়া অটোরিকশার চাকায় লাশ শিশু, রক্তাক্ত ২

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় অটোরিকশার নিচে চাপা পড়ে মেহেরুন্নেছা পুতু নামে ৭ বছর বয়সী এক স্কুলছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন নারী-শিশুসহ ২ জন।

শনিবার (১৬ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে বড়ঘোপ ইউনিয়নের মনোহরখালী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন: হাটহাজারীতে দুই অটোরিকশার সংঘর্ষে ‘লাশ’ নারী, পরিচয় মিলেনি

নিহত মেহেরুন্নেছা পুতু একই এলাকার মাসুক হোছেন বেলালের মেয়ে এবং মনোহরখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন- একই স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী আফরিনা সোলতানা নিলা (৮) ও কৈয়ারবিল ইউনিয়নের মলমচর এলাকার মনছুরা বেগম (৪৫)।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, আজ (শনিবার) দুপুর ২টার দিকে বড়ঘোপ ইউনিয়নের মনোহরখালী এলাকার বিসমিল্লাহ নার্সারির সামনে একটি দ্রুতগতির যাত্রীবাহী অটোরিকশা রিকশাকে ধাক্কা দিয়ে উল্টে যায়। এসময় রিকশার যাত্রী মনছুরা বেগম ও আফরিনা সোলতানা নিলা রাস্তায় ছিটকে পড়লেও মেহেরুন্নেছা গাড়ির নিচে চাপা পড়ে। অটোরিকশা চালক গাড়ি তুলে দ্রুত পালিয়ে যায়।

আরও পড়ুন: তুচ্ছ ঘটনায় লাশ যুবক—জড়িতদের খুঁজছে পুলিশ

পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে কুতুবদিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মেহেরুন্নেছা পুতুকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওমর হায়দার জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লাশ এখনো হাসপাতালে। নিহতের পরিবারের সিদ্ধান্তের ওপর ভিত্তি করে লাশ ময়নাতদন্তে পাঠানো হবে।

বলরাম/আরবি

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm