লকডাউন—ব্যাংকে ছুটছেন ‘উদ্বিগ্ন’ গ্রাহকরা, রাস্তায়ও প্রতীক্ষা

বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) সর্বাত্মক লকডাউনে যাচ্ছে সারাদেশ। ৩০ জুন পর্যন্ত খোলা থাকবে আর্থিক প্রতিষ্ঠান। এ খবর ছড়িয়ে পড়ায় নগরের ব্যাংকগুলোতে বেড়েছে গ্রাহকের ভিড়।

রোববার (২৭ জুন) সকাল ৯টা থেকেই বিভিন্ন ব্যাংকের সামনে দেখা গেছে মানুষের লম্বা লাইন।

সকাল ১০টায় নগরের প্রেস ক্লাব নিচতলায় অগ্রণী ব্যাংকে গিয়ে দেখা যায়, ভেতরে জায়গা সংকুলান না হওয়া এবং সাামাজিক দূরত্ব মেনে লাইনের কারণে রাস্তায়ও লম্বা লাইনে অপেক্ষা করছেন নারী-পুরুষ গ্রাহকরা। রোদ থেকে বাঁচতে অনেকে দাঁড়িয়ে ছাতা মাথায়।

ব্যাংকে সিরিয়াল অনুযায়ী ঢোকানো হচ্ছে। ঢোকার সময় গ্রাহকের শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপের সঙ্গে স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করাচ্ছেন নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিতরা। তবে ব্যস্ত থাকায় ব্যাংকের কোনো কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

Yakub Group

অগ্রণী ব্যাংকের গ্রাহক ইয়াসমিন বলেন, ‘বৃহস্পতিবার থেকে সর্বাত্মক লকডাউন শুরু হবে। এদিকে মাসেরও শেষ। হাতে একদম টাকা-পয়সা নেই বললেই চলে। তাই জমিয়ে রাখা সঞ্চয় থেকে কিছু টাকা তুলতে আসলাম। আপাতত লকডাউন পর্যন্ত যাতে চালিয়ে নেওয়া যায়।’

আন্দরকিল্লা ব্যাংক এশিয়ার শাখায় গিয়েও দেখা গেছে একই চিত্র। গ্রাহকদের স্বাস্থ্যবিধি মানার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। ব্যাংকের দ্বিতীয় তলা থেকে গ্রাহকের লাইন নিচতলা পর্যন্ত গিয়ে ঠেকেছে।

ব্যাংক এশিয়ার গ্রাহক নুরুল হুদা বলেন, ‘এটিএম বুথ থেকে টাকা তোলা গেলেও জমা দিতে ব্যাংকে আসলাম। ১ জুলাই থেকে লকডাউন শুরু হলে কীভাবে লেনদেন চলবে, সেটা নিয়েও একটু ভাবতে হচ্ছে। এ বিষয়ে ব্যাংক থেকে জানতে এলাম।’

এদিকে তথ্য অধিদফতরের প্রধান তথ্য অফিসার সুরথ কুমার সরকার জানান বিধিনিষেধ শুরু হবে সোমবার থেকে। কিন্তু চূড়ান্ত লকডাউন বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে সাতদিন থাকবে।

তিনি জানান, এই সময় থেকে গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। তবে সীমিত পরিসরে কিছু প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে। আর সাতদিনের সর্বাত্মক লকডাউন শুরু হবে ১ জুলাই থেকে। তবে শিল্প কলকারখানা লকডাউনের আওতার বাইরেই থাকতে পারে।

এর আগে শুক্রবার (২৫ জুন) জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, লকডাউনে জরুরি পরিষেবা ছাড়া সব সরকারি-বেসরকারি অফিস, দোকানপাট ও শপিং মল বন্ধ থাকবে। জরুরি পণ্যবাহী যান ছাড়া সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।

আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm