রেলওয়ে পাহাড়তলী লোকোশেডে চুরি—কর্তারা ব্যস্ত এখন শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের পাহাড়তলী লোকোশেডে ইঞ্জিনের মূল্যবান যন্ত্রাংশ চুরির ঘটনায় সবাই ব্যস্ত শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে।

অভিযুক্ত নিরাপত্তা পরিদর্শক ইসরাইল মৃধা তদন্ত কমিটিকে জানিয়েছেন অসুস্থতার কথা। তবে এতেও তাঁর শেষ রক্ষা হচ্ছে না। প্রাথমিকভাবে ঘটনায় তাঁর সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি।

এ ঘটনায় তদন্ত কমিটির মুখোমুখি হতে হয়েছে ইসরাইল মৃধাকে। এর আগে যান্ত্রিক ও বৈদ্যুতিক বিভাগ এই চুরির ঘটনা কৌশলে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছিল।

আরও পড়ুন : রেলে মাইলেজ জটিলতা—৪ দপ্তরে চিঠি চালাচালি, রেল বন্ধের হুমকি

এদিকে ঘটনার দিন ইসরাইল মৃধার অসুস্থ হয়ে পড়া রহস্যজনক বলে মনে করছে তদন্ত কমিটি।
জানা গেছে, গত ২০ জানুয়ারি রাতে কোনো এক সময় দেয়াল টপকে চোর ভেতরে ঢুকে। এ সময় লোকোশেডে থাকা ইঞ্জিনের তামার তার ও ব্রেক বাল্কসহ গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রাংশ নিয়ে যায়। ওইদিন নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর (আরএনবি) পরিদর্শক ইসরাইল মৃধা ঘটনার কিছুই জানেন না বলে দাবি করেন। ওইদিন তিনি অসুস্থ হওয়ায় বাসায় ছিলেন বলে জানান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে রেলওয়ের এক কর্মকর্তা জানান, চুরির বিষয়ে ইসরাইল মৃধাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তাঁর সঙ্গে কথা বলে ঘটনার বিস্তারিত জেনে বিষয়টি রহস্যজনক বলে মনে হয়েছে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির রিপোর্টে দোষী প্রমাণিত হলে তাঁর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিস্তারিত তদন্তের পর জানা যাবে।

এদিকে চুরির ঘটনা ঘটলেও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লোকোশেড ইনচার্জ নজরুল ইসলাম কিছুই জানেন না বলে দাবি করেন।

আরও পড়ুন : ‘রেলওয়েতেই রাজত্ব’—নিউজ করলে খুন করার হুমকি কথিত আওয়ামী লীগ নেতা হেলালের

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের প্রধান বৈদ্যুতিক প্রকৌশলী হাবিবুর রহমানও ‘মিডিয়ায় কথা বলার এখতিয়ার নেই’ জানিয়ে দায় এড়িয়ে যান।

আবার রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মো. জাহাঙ্গীর হোসেনও চুরির বিষয়ে অবগত নন বলে জানান। জানতে চাইলে তিনি চট্টগ্রাম বিভাগীয় ব্যবস্থাপকের (ডিআরএম) কাছে খোঁজ নিতে বলেন।

সিএম/ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm