রাত পোহালেই চোখ রাঙাবে প্রশাসন, মানতে হবে যা

রাত পোহালেই শুরু হবে কঠোর বিধিনিষেধ। এবারের বিধিনিষেধে ‘চোখ রাঙাবে’ প্রশাসন। নিয়ম ভাঙলেই থাকছে কঠিন শাস্তি।

বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া কঠোর এই বিধিনিষেধ থাকবে ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত।

গণপরিবহন, মিডিয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে ব্যাখা দেওয়া হয়েছে ২১ শর্তের কঠোর বিধিনিষেধে।

যারা মুক্ত

গণমাধ্যম কর্মীরা কঠোর বিধিনিষেধের আওতাবহির্ভূত থাকবে। একইসঙ্গে জরুরি সেবা, অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মচারী ও যানবাহন প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে যাতায়াত করতে পারবেন। যার মধ্যে রয়েছে কৃষি পণ্য ও উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, রাজস্ব আদায় সম্পর্কিত কার্যাবলি, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম, বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাকসেবা, ব্যাংক, ফার্মেসি ও ফার্মাসিউটিক্যালস।

যা বন্ধ থাকবে

* সব ধরনের গণপরিবহন (অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটসহ)।

* সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস।

* শপিংমল-মার্কেটসহ সব দোকান।

* পর্যটনকেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদনকেন্দ্র।

যা চালু থাকবে

* ব্যাংক ও শিল্প-কারখানা

* পণ্য পরিবহনে নিয়োজিত ট্রাক/লরি/কাভার্ডভ্যান/কার্গো ভেসেল, রিকশা।

* আন্তর্জাতিক ফ্লাইট।

* বন্দর (বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল)।

* খাবারের দোকান, হোটেল-রেস্টুরেন্ট (সকাল ৮টা-রাত ৮টা)।

* কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য (উন্মুক্ত স্থানে বিক্রি)।

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm