রক্ত খেয়ে আবারও সেই যুবককে বিদ্যুতের টাওয়ারের চূড়ায় তুলল জিন!

রাউজানে একটি উঁচু বিদ্যুতের টাওয়ারের চূড়া থেকে মো. নাছির উদ্দিন (৩০) নামে এক যুবককে উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা।

শুক্রবার (১৭ মে) রাত ১১টার দিকে উপজেলার উরকিরচর ইউনিয়নের বৈজ্জাখালী গেইট এলাকার চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কের পাশের বিদ্যুতের টাওয়ার থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, রাউজানের অন্তত ৪-৫টি বিদ্যুতের টাওয়ারে উঠেছিলেন ওই যুবক। নাম নাছির উদ্দিন বললেও কখনও নোয়াখালী, কখনও কুমিল্লা আবার কখনও ঢাকা তাঁর বাড়ি বলে জানায়। তিনি সিরাজ বাবুর্চির ছেলে বলেও পরিচয় দেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ওই যুবক বেশি উচ্চতার বিদ্যুতের টাওয়ারের চূড়ায় হঠাৎ উঠে পড়ে। সেখানে উঠে নাচানাচি করতে থাকে। বিদ্যুতের টাওয়ারের চূড়ায় উঠলেও তার কখনও ক্ষতি হয়নি। তাকে নামানোর কৌশল হচ্ছে আজান। আজান দিলে তিনি উঁচু টাওয়ারের চূড়ায় থাকতে পারেন না।

আরও পড়ুন : ‘পাগল’ উঠল ১৩০ ফুট উঁচু বিদ্যুতের টাওয়ারে, নামাতে ৪ ঘণ্টার যুদ্ধ

জানা গেছে, নাছির নামে এ যুবককে ২০১৮ সালের ২৫ জানুয়ারি রাউজানের উরকিরচর, একই সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি উপজেলার নোয়াপাড়া পথেরহাট বাজারের পল্লিমঙ্গল এলাকার একটি উঁচু বিদ্যুতের টাওয়ার থেকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শুধু রাউজান নয়, ২০২৩ সালের ২৫ মে ও ৩১ মে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার দুটি এলাকার বিদ্যুতের টাওয়ার থেকে তাকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা।

প্রত্যক্ষদর্শী জনপ্রতিনিধি আবদুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, আমি শহর থেকে ফেরার পথে দেখি অনেক লোকসমাগম। পরে দেখতে পাই, সুউচ্চ বিদ্যুতের টাওয়ারের চূড়ায় এক যুবক। তাকে উদ্ধারে তৎপরতা চালচ্ছে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। দীর্ঘক্ষণ চেষ্টার পর তাঁকে নিচে নামিয়ে আনা হয়।

যোগাযোগ করা হলে কালুরঘাট ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বাহার উদ্দিন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ‘রাউজানে একটি বিদ্যুতের টাওয়ারে উঠেছিল ওই যুবক। খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করা হয়। আসলে সে পাগল। এ পর্যন্ত ৬-৭ বার এ কাজ করেছে। তার সঙ্গে কথা বললে সে জানায়, তার সঙ্গে নাকি জিন আছে, জিন নাকি তার রক্ত খায়, টাওয়ারে তুলে ফেলে।

এসএ/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!