ব্যাডমিন্টন খেলা নিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত করা হলো মা—ছেলেকে

কর্ণফুলীতে ব্যাডমিন্টন খেলতে মানা করার জেরে মা-ছেলেকে কুপিয়ে জখম ও বসতবাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশ ৩ জনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করেছে।

সোমবার (১০ জানুয়ারি) দুপুর তিনটার দিকে শিকলবাহার কমলাপাড়া ডাঙা নাসিরের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

হামলায় আহতরা হলেন- একই এলাকার ভাড়াটিয়া মৃত নজরুল ইসলামের স্ত্রী মোছাম্মৎ মায়া রানী (৪০) ও ছেলে মো. মাসুম (২৮)।

এদিকে খবর পেয়ে শিকলবাহা পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা আহতদের উদ্ধার করে ঘটনাস্থল থেকে মো. সুমন (৩৪), মো. রবিন (২৩) ও মো. ইমনকে (২০) আটক করে।

Yakub Group

ঘটনার পর আহত মায়া বেগম বাদী হয়ে ফোরখ আহমদের ছেলে মো. রুবেল (৩২), মো. সুমন (৩৪), মো. রবিন (২৩), মো. ইমন (২০) ও একই এলাকার মো. মফিজের ছেলে মো. মুন্নাকে (১৮) আসামি করে কর্ণফুলী থানায় মামলা করেছেন।

আরও পড়ুন: আবারও রক্তাক্ত ৪, আনোয়ারা—কর্ণফুলীতে বেড়েছে দুর্ঘটনা

আহত মোছাম্মৎ মায়া রানী (৪০) জানান, প্রতিদিনের মতো আজ (সোমবার) দুপুরে তারা উঠানে ব্যাডমিন্টন খেলছিল। একপর্যায়ে চিৎকার শুরু করে এবং ঘরের দরজায় ইট-পাথর নিক্ষেপ করছিল। পরে আমি ও ছেলে ঘর থেকে বের হতেই তারা আমাদের ওপর ঝাপিয়ে পড়ে মারধর শুরু করে। একপর্যায়ে মাথায় আঘাত করলে আমরা রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে যায়। পরে আমার ছেলে-মেয়ে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরও মারধর করে মেয়েকে ঘরে বেঁধে রাখে। এ ঘটনায় ৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছি।

জানতে চাইলে ইউপি সদস্য শফিউল আলম জানান, খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি রক্তাক্ত অবস্থায় তারা মাটিতে পড়ে আছে। পরে থানাকে জানালে পুলিশ এসে আহতদের উদ্ধার করে এবং ঘটনাস্থল থেকে ৩ জনকে আটক করে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে শিকলবাহা পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক কামাল হোসেন জানান, মারামারির ঘটনায় আহতদের উদ্ধার করে ঘটনাস্থল থেকে তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

যোগাযোগ করা হলে কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ জানান, এ ঘটনায় আটক তিনজনকে মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

ইমরান/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm