ডা. এল এ কাদেরীর মৃত্যুতে বিএমএর শোক

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের নিউরোর্সাজারি বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. এল এ কাদেরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশেন (বিএমএ) চট্টগ্রাম শাখার নেতৃবৃন্দ।

রোববার (২৯ আগস্ট) সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. একিউএম সিরাজুল ইসলাম, বর্তমান সভাপতি ডা. মুজিবুল হক খান, সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. ফয়সল ইকবাল চৌধুরী এক বিবৃতিতে শোকপ্রকাশ করেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, অধ্যাপক ডা. এল এ কাদেরীর মৃত্যুতে চট্টগ্রামের চিকিৎসকেরা একজন অভিভাবককে হারালেন। তাঁর মৃত্যু দেশের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।

আরও পড়ুন: ‘স্বাস্থ্যের আরেক কাণ্ড’—বদলি পেল অবসরে যাওয়া ডাক্তারও

রোববার (২৯ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নগরের সিএসসিআর হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এল এ কাদেরী মারা যান। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে ভুগছিলেন।

অধ্যাপক ডা. এল এ কাদেরী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের তৃতীয় ব্যাচের ছাত্র ছিলেন। তিনি দেশের দ্বিতীয় নিউরোর্সাজন। বিএমএ চট্টগ্রাম শাখার ১৯৮৮-১৯৯১ এবং ১৯৯৬-২০০০ দুবারের নির্বাচিত সভাপতিও ছিলেন তিনি।

নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের সময় এরশাদের পেটোয়া বাহিনীর গুলিতে মারা যান ডা. শামশুল আলম খান মিলন। ১৯৯০ সালের ২৭ নভেম্বর তার মৃত্যুর পর চট্টগ্রামে চিকিৎসকসমাজ ডা. এল এ কাদেরীর নেতৃত্বে কারফিউ ভেঙে রাজপথে প্রথম প্রতিবাদ করেন।

আরও পড়ুন: ক্যান্সারের কাছে হার মানলেন অধ্যাপক ডা. এল এ কাদেরী

বিএমএ চট্টগ্রাম শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

আরবি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm